s alam cement
আক্রান্ত
১০১৬৩০
সুস্থ
৮৬৬০৯
মৃত্যু
১২৯৩

চট্টগ্রামে দেশের প্রথম ইলেকট্রিক গাড়ির কারখানা, ৭ লাখে মিলবে পাঁচ সিটের কার

সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকার কারখানা

31

গাড়ি থেকে সামান্যতম ধোঁয়াও বেরোবে না। পরিবেশ থাকবে দূষণমুক্ত। বিদ্যুৎচালিত গাড়ি কেবলমাত্র এই কারণেই হতে চলেছে ভবিষ্যতের বাহন। এটা মাথায় রেখে বিশ্বজুড়ে বড় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো যখন আধুনিক প্রযুক্তির বৈদ্যুতিক গাড়ি উৎপাদনে বড় বিনিয়োগ শুরু করেছে, খানিকটা দেরিতে হলেও বাংলাদেশও এবার সেই পথেই হাঁটতে যাচ্ছে। সারা পৃথিবীতেই যখন দ্রুতগতিতে বাড়ছে বৈদ্যুতিক গাড়ির ব্যবহার, বাংলাদেশও আর হাত গুটিয়ে নেই।

স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে এবার চট্টগ্রামে হচ্ছে দেশে বৈদ্যুতিক গাড়ি উৎপাদনের প্রথম কারখানাটি। ১০০ একর জায়গায় প্রতিষ্ঠিত সেই কারখানা থেকে তৈরি বৈদ্যুতিক গাড়ি বাজারে আসতে পারে আগামী ৫-৬ মাসের মধ্যেই— এমন সম্ভাবনার কথা জোরালো স্বরে জানাচ্ছেন উদ্যোক্তারা। শুধু তাই নয়, ৭ থেকে ১৪ লাখ টাকার মধ্যে আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন এই গাড়ি গ্রাহকের হাতে তুলে দেওয়ার আশাবাদও জানাচ্ছেন তারা। জাপানি ও কোরিয়ান গাড়ির নকশায় তৈরি হবে গাড়িগুলো।

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরির কারখানাটি তৈরি করছে বাংলাদেশ অটো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। ২০১৮ সালে শুরু হওয়া কারখানাটির কাজ এখন প্রায় শেষের পথে। এতে বিনিয়োগ হচ্ছে প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা।

এই কারখানায় বাংলাদেশ অটো ইন্ডাস্ট্রিজের অংশীদার চীনা প্রতিষ্ঠান ডংফেং মোটর গ্রুপ লিমিটেড। এটি চীনের শীর্ষস্থানীয় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের একটি। তাদের আবার জাপানের হোন্ডা, নিশান, ফ্রান্সের সিটরয়েনসহ জাপানি ও ইউরোপীয় কয়েকটি গাড়ি নির্মাতার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগের কারখানা রয়েছে।

১৩ থেকে ১৪ লাখ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে পাঁচ সিটের সেডান গাড়ি।
১৩ থেকে ১৪ লাখ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে পাঁচ সিটের সেডান গাড়ি।

চট্টগ্রামের কারখানাটিতে চার চাকার বৈদ্যুতিক গাড়িই নয় শুধু, একই সঙ্গে মাইক্রোবাস, কাভার্ড ভ্যান ও মিনি ট্রাক তৈরির পরিকল্পনাও রয়েছে। প্রাথমিকভাবে বছরে ৩৫ হাজার ব্যক্তিগত গাড়ি বা প্রাইভেট কার, ৫০ হাজার তিন চাকার যান এবং এক লাখ ইলেকট্রিক মোটরসাইকেল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে।

বাংলাদেশ অটো ইন্ডাস্ট্রিজ বলছে, কারখানায় গাড়ি সংযোজন নয়, সরাসরি উৎপাদন করা হবে। গাড়ির ৭০ শতাংশই কারখানায় উৎপাদিত হবে, বাকি ৩০ শতাংশ হবে সংযোজন।

দাম পড়বে যেমন

উদ্যোক্তারা বলছেন, দেশের মধ্যবিত্ত ও উচ্চমধ্যবিত্তকে লক্ষ্য করে তৈরি এই বৈদ্যুতিক গাড়ির দাম রাখা হবে হাতের নাগালের মধ্যেই। মানভেদে সর্বনিম্ন সাত থেকে সর্বোচ্চ ১৪ লাখ টাকার এই গাড়ি কিস্তিতেও কেনার সুযোগ থাকবে।

৭ থেকে ১০ লাখ টাকার মধ্যে মিলবে পাঁচ সিটের হ্যাচব্যাক কার। দেড় লাখ টাকা এককালীন জমা দিয়ে কেনা যাবে এই গাড়ি। বাকি টাকা শোধ করা যাবে ৭ থেকে ১০ হাজার টাকার মাসিক কিস্তিতে।

অন্যদিকে ১৩ থেকে ১৪ লাখ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে পাঁচ সিটের সেডান গাড়ি। এককালীন একটি নির্দিষ্ট টাকা জমা দিয়ে মালিক হওয়া এই গাড়িরও। বাকি টাকা শোধ করা যাবে মাসিক কিস্তিতে।

এছাড়া চট্টগ্রামের কারখানায় তৈরি স্পোর্টস ইউটিলিটি ভেহিক্যালের (এসইউভি) দাম পড়তে পারে ২৫ লাখ টাকার মতো। অন্যদিকে ইলেকট্রিক মোটরসাইকেলের দাম হতে পারে ৫০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা।

প্রসঙ্গত, রাজধানীতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় জানানো হয়, পেট্রোলচালিত গাড়ির প্রতি এক হাজার কিলোমিটারের জন্য যেখানে ৫৩৭৫ টাকা খরচ হয়, সেখানে একই দূরত্বের জন্য বৈদ্যুতিক গাড়ির ক্ষেত্রে খরচ হবে ১২৫০ টাকা। এছাড়া পেট্রোলচালিত গাড়ির চেয়ে বিদ্যুৎচালিত গাড়ির যান্ত্রিক দক্ষতাও বেশি এবং এটি পরিবেশবান্ধব।

ব্যাটারি চার্জ হবে যেভাবে

চট্টগ্রামে তৈরি বৈদ্যুতিক এই গাড়ির ব্যাটারি চার্জ দেওয়া যাবে বাসায়ও। আবার সড়কের পাশে প্রচলিত সিএনজি ও পেট্রোল পাম্পের পাশেও ব্যাটারি চার্জ দেওয়ার জন্য বসানো হবে চার্জিং ইউনিট।

উদ্যোক্তারা বলছেন, বৈদ্যুতিক এই গাড়িতে জ্বালানি খরচ কমবে ৯০ শতাংশ। প্রতি কিলোমিটারে জ্বালানি খরচ হবে দুই টাকারও কম।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে বৈদ্যুতিক গাড়ির জন্য নীতিমালা প্রণয়নের পাশাপাশি আমদানি করা গাড়ির জন্য চার্জিং নীতিমালা নিয়েও কাজ শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। কর্মকর্তারা বলছেন, নীতিমালা চূড়ান্ত হলেই বৈদ্যুতিক গাড়ি আমদানি শুরু হবে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর বিদ্যুৎচালিত যানবাহন সংক্রান্ত নীতিমালা চূড়ান্ত করতে বৈঠকেও বসেছেন সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। অন্যদিকে বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে, দেশে বিদ্যুৎচালিত গাড়ি আমদানির পর সেগুলোর চার্জিং স্টেশন কোথায় হবে বা কেমন হবে কিংবা ট্যারিফ কেমন হবে— এসব বিষয়ে সম্প্রতি একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা হয়েছে।

তিন কারখানায় তিন কাজ

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরির জন্য বাংলাদেশ অটো ইন্ডাস্ট্রিজ জমি পেয়েছে মোট ১০০ একর। এই জমিতে গাড়ির যন্ত্রাংশ, ব্যাটারি ও চার্জার তৈরির জন্য আলাদা দুটি কোম্পানি গঠন করে কারখানাও হচ্ছে আলাদা। এর একটির নাম বাংলাদেশ লিথিয়াম ব্যাটারি লিমিটেড— যার অংশীদার হংকংয়ের জিয়াংসু রুইহং লিথিয়াম কোম্পানি লিমিটেড। অন্য কারখানাটির নাম মোটর টেকনোলজি লিমিটেড— যার অংশীদার চীনের উহান সায়ান পাওয়ার টেকনোলজি কোম্পানি। এছাড়া অপর একটি কারখানায় তৈরি হবে মোটর কন্ট্রোলার চার্জার।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

31 মন্তব্য
  1. rumon বলেছেন

    আমি কি কিস্তিতে বুকিং দিতে পারব কি ? দেওয়ার কোনো সুযোগ থাকলে দয়া করে জানাবেন ?

    1. চট্টগ্রামবাসী বলেছেন

      পারবেন কাকু।

      1. চট্টগ্রাম বলেছেন

        পারবেন কাকু

      2. Mohammed Ali বলেছেন

        Very nice project for Bangladesh

    2. Akhtar Raquib Hamid বলেছেন

      যদি তারা গাড়ির ছাদের উপরে সৌর শক্তি ব্যাটারি চার্জিং সিস্টেম ব্যবহার করে তবে এটি আরও সুবিধাজনক হবে ।

  2. মিজবাহ্ উদ্দিন বলেছেন

    বাংলাদেশে গাড়ির ব্যাবসায় দেশীয় কোম্পানি তখনি সফল হবে,যখন ভারতের টাটা,জাপানের সুজুকি এদেশে নিরুৎসাহিত করা হবে সরকারি পর্যায় থেকে।নাহয় বড় লোকসানের মুখ দেখবে এই কোম্পানি

    1. রফিক বলেছেন

      ঠিক বলেছেন

    2. NURALAM বলেছেন

      ধন‍্যবাদ

      1. Abu Hasan বলেছেন

        Government should ban to import car from foreign country in any way otherwise this project will fall in heavy loss.

  3. Anwarul Azam বলেছেন

    দাম ২/৩ লাখের মধ্যে রাখলে ভাল। এদেশে উচ্চ মূল্যের গাড়ীর ছড়াছড়ি ৫০/৬০ বছর থেকেই। কেট লাভ কম রাখতে চায়না। খোদ আমেরিকায় গাড়ি হাতের নাগালেই।

    1. Md.Awlad Hossain Shaikh বলেছেন

      good news.

  4. মোঃ মমিনুর রহমান বলেছেন

    ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাণে খরচ অনেক কম হওয়ার কথা।
    সেই হিসাবে প্রতিটি মডেলের মুল‍্য অর্ধেক হওয়া উচিত।
    কিন্তু সব জায়গায় বাটপারি চলছে এখানে আবার বাদ যাবে।

    1. Morshed বলেছেন

      Per kilometre cholar khoroch sotik noy, mone kore, 10000 kilo cholce tarpor battery bodol korlam. Charging khoroch + battery changing khoroch÷10000=…….. Per kilo khoroch Hobe. Ja apnara bolenne.

  5. Morshed বলেছেন

    Per kilometre cholar khoroch sotik noy, mone kore, 10000 kilo cholce tarpor battery bodol korlam. Charging khoroch + battery changing khoroch÷10000=…….. Per kilo khoroch Hobe. Ja apnara bolenne.

  6. সোহেল বলেছেন

    ভাল কাজ

  7. মো মনিরুজ্জামান বলেছেন

    একবার ফুল চার্য বেটারীতে কত কিলোমিটার চলবে

    1. আরিফ হোসেন বলেছেন

      ব্যটারির স্থায়ীত্ত্ব কত মাস বা বছর ? এই তথ্যটা পেলাম না। দিতে পারলে উপকৃত হোতাম।

  8. Rocky বলেছেন

    দেশী পণ্য হয়ে লাভ কি যদি সবাই সুবিধা ভোগ করতে না পারি ।গাড়ি 7 থেকে 14 লাখ করলে তাহলে দেশের পণ্য সবার কাছে আসবে কি করে ।।আশা করি দাম কিছু কমলে সবার সাধ্যের মধ্যে আসবে।আশা করি কতৃপক্ষ দৃষ্টি আকর্ষণ করবেন।

    1. Md. Tareque Hossain Khan বলেছেন

      100% right

  9. ফারুক বলেছেন

    দোয়া করি, দেশ এগিয়ে যাক,

  10. মোহাম্মদ মালেকুজ্জামান বলেছেন

    কোন ষড়যন্ত্রকারী যেন এই উদ্যোগ নষ্ট করতে না পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

  11. আবু আলম বলেছেন

    এই গাড়ির দাম প্রস্তাবিত দামের অর্ধেক হওয়া উচিত।

  12. আবদুল হাদি বলেছেন

    চারজিং এর সাথেসাথে চোলারও থাকলে ভালোহতো।

  13. হোসেন বলেছেন

    স্বল্প মেয়াদি, মধ্য মেয়াদি ও দীর্ঘ মেয়াদি, এই তিন পদ্ধতিতে সমমানের গাড়ী আমদানি সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করতে হবে। তাহলে দেশীয় গাড়ী তৈরির উদ্দেশ্য স্বার্থক হবে। অন্যথায় দোয়েল ল্যাপটপের মতো মধ্যে পথে সব বন্ধ হয়ে যাবে।
    দেশের অধিকাংশ জনগন যেনো এর সুবিধা নিতে পারে সে কারনে এর মূল্য আরও কমানোর অনুরোধ রইলো।
    দোওয়া করি এ দেশ যেন আরো এগিয়ে যায়।

    1. S.M.SUJON বলেছেন

      দেখা যাক বৈদ্যুতিক গাড়িটি কতটুকু খাপ খাইয়ে নিতে পারে

  14. আকতার হোসেন তাহির বলেছেন

    গাড়ির দাম বেশি মনে হচ্ছে,কম হলে কিনতে পারতাম,

  15. সমীর কর্মকার বলেছেন

    গাড়ির সিসি কতো থাকবে, আর গাড়ির ম্যাক্স গতিবেগ কতটা থাকবে, জানালে উপকৃত হতাম

  16. আবু আহমেদ হামিদুল্লাহ্ বলেছেন

    দাম কম হওয়া উচিত , অনেক উন্নত দেশে গাড়ির দাম নাগালের ভিতরে

  17. Akhtar Raquib Hamid বলেছেন

    যদি তারা গাড়ির ছাদের উপরে সৌর শক্তি ব্যাটারি চার্জিং সিস্টেম ব্যবহার করে তবে এটি আরও সুবিধাজনক হবে ।

  18. নকুল বলেছেন

    লেখাটি আরো বিস্তারিত হওয়া প্রয়োজ।

  19. নকুল বলেছেন

    লেখাটি আরো বিস্তারিত হওয়া প্রয়োজন।।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm