মহিলাদল থেকে মনি বহিস্কার, নতুন দায়িত্বে ফাতেমা বাদশা

0

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের চট্টগ্রাম নগর কমিটির সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মনিকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। তার পরিবর্তে ভারপ্রাপ্ত সভানেত্রী করা হয়েছে দলের সিনিয়র সহ-সভানেত্রী ফাতেমা বাদশাহকে। শনিবার (৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহমেদ চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

কেন্দ্রীয় মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহমেদ চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, দলের দায়িত্বশীল পদে থেকে কাণ্ডজ্ঞানহীন কথাবার্তা অশোভনীয়। যেখানে আমাদের চেয়ারপার্সন প্রহসনের মামলায় কারাবন্দি, হাজার হাজার নেতাকর্মী কারাবন্দি। এক কোটির কাছাকাছি নেতাকর্মী মামলার আসামি। আওয়ামী লীগের মতো অগণতান্ত্রিক দলের নেতার প্রশংসা আমাদের সকল ত্যাগকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। সব কিছু বিবেচনায় তাকে দল থেকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে নিয়ে প্রশংসাসূচক বক্তব্য রেখে নিজ দল থেকে বহিস্কার হয়েছেন মনোয়ারা বেগম মনি। এ প্রসঙ্গে শনিবার রাতে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনের মন্তব্য জানতে চাওয়া হলে তিনি চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘মনিকে যদি দল থেকে বহিস্কার করা হয় সেটা তাদের দলীয় বিষয়। তাদের দলীয় অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমি মন্তব্য করবো না।’

মনোয়ারা বেগম মনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) বাগমনিরাম, জামালখান ও লালখান বাজার ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর। গত শুক্রবার (৪ অক্টোবর) নগরীর লালখান বাজার এলাকায় দুর্গাপূজা উপলক্ষে আয়োজিত বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে মনোয়ারা বেগম মনি চসিক মেয়র পদে বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছিরকে আবারও নির্বাচিত করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। আ জ ম নাছিরকে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ মেয়র আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, নাছির যদি নির্বাচিত না হন তবে তিনি অন্য মেয়রের অধীনে কাউন্সিলর হতে চান না।

তার এই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে নিজ দলের বাইরেও ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। পরে বিভিন্ন গণমাধ্যমেও সংবাদের শিরোনামে আসে মনির বক্তব্যটি। বিশেষ করে নগর বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব ও মহিলা দলের ভেতর মনির দেওয়া এই বক্তব্যে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়।

ভারপ্রাপ্ত সভানেত্রী ফাতেমা বাদশাহ দায়িত্ব পেয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমি সারাজীবন দলের কর্মী হিসেবে কাজ করেছি। পদ-পদবির দিকে তাকাইনি। দল বিশ্বাস করে আমার উপর দায়িত্ব অর্পন করেছে। সবাইকে সাথে নিয়ে নেত্রীর মুক্তির সংগ্রাম চালিয়ে যাবো ইনশাআল্লাহ।’

বহিস্কার প্রসঙ্গে শনিবার সন্ধ্যায় মনোয়ারা বেগম মনি চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমি ভুল করেছি। ভুলের সাজা পেয়েছি। বিএনপির ছাতায় ছিলাম, সারা জীবন বিএনপির হয়ে কাজ করে যাবো।’

প্রসঙ্গত, মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের প্রশংসা করে মনোয়ারা বেগম মনি বলেছিলেন,আজকে আমি আ জ ম নাছির উদ্দিন সম্পর্কে কিছু কথা বলতে চাই। উনাকে আমি যখন ডেকেছি, যে কোন প্রোগ্রামে, নাক ফোঁড়ানো অনুষ্ঠানে, একটু অসুস্থ রোগীকে দেখা সবকিছুতেই উনি হজির হন। সকাল ৮টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত উনি জনগণের সাথে মিশে যান। উনি একঘণ্টাও রেস্ট নেন না, আমি নিজে দেখেছি। আমি অবাক হয়ে যাই, একজন মানুষ কিভাবে জনগণের জন্য এভাবে নিজেকে নিবেদিত করতে পারে।

মেয়র ও তার রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে মনি বলেন, আ জ ম নাছির একটা দল করেন, আমি আরেকটা দল করি। সেটাতে আমি বিশ্বাসী না। আমি বুঝি, দল ও মতের উর্ধ্বে হলো মানবতার সেবা। মানবতার জন্য কাজ করাই হচ্ছে রাজনীতি, সমাজনীতি। কে কোন দল করে সেটা বিবেচনা করে আ জ ম নাছির কাজ করেন না। উনি একটা জায়গায় আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি। কিন্তু উনি চট্টগ্রামের অভিভাবক। আগামী দিনেও আমরা আ জ ম নাছিরকে আবার মেয়র হিসেবে দেখতে চাই। সবকিছুর উর্ধ্বে উঠে আ জ ম নাছির। সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে আ জ ম নাছির মেয়র হবেন, আবার এখানে আসবেন। আমরা আবার ফুল দিয়ে বরণ করে নেবো তাকে।’

এফএম/এসএস

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন