আক্রান্ত
২১০০১
সুস্থ
১৬৪৩৪
মৃত্যু
৩০২

স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ নামিয়ে রেখে পালাল স্বামী

0

বিয়ের পর থেকেই তার উপর নির্যাতন করত স্বামী ও স্বামীর বাড়ির লোক। টুম্পার প্রবাসী স্বামী দেশে ফিরেছিলেন করোনার লকডাউনে। গতরাতেও বেঁধেছিল পারিবারিক বিবাদ। সকালে টুম্পার ঝুলন্ত লাশ মিলল স্বামীর বাড়ির ডাইনিং রুম থেকে। ফ্যান থেকে স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ নামিয়ে রেখে মাকে নিয়ে চম্পট দেয় টুম্পার স্বামী ওয়াসিম আকতার।

এরপর স্থানীয়দের খবরে বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে পটিয়ার কুসুমপুরা ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ডের হরিনখাইন এলাকার টুম্পার স্বামীর বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে ময়নাতদন্তের আগে কিছুই বলা যাচ্ছে না অন্যদিকে স্থানীয়রা জানায় টুম্পা স্বামীর বাড়িতে নির্যাতনের শিকার।

নিহত গৃহবধূ টুম্পা আকতার (২৫) একই উপজেলার পূর্ব থানা মহিরা এলাকার মনির হাজীর মেয়ে। টুম্পার সাড়ে তিন বছরের একটি ছেলে আছে।

স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার সকালে ডাইনিং রুমের ফ্যানের সাথে পরনের শাড়ি জড়িয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায় টুম্পা আক্তারকে। মরদেহ দেখতে পেয়ে পটিয়া থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ আসার আগেই নিহতের স্বামী লাশটি নামিয়ে নিচে রেখে পালিয়ে যায়।

নিহত টুম্পার বাবা মনির হাজী বলেন, চার বছর আগে একই ইউনিয়নের ওয়াসিম আকরামের সঙ্গে মেয়েকে বিয়ে দেন। বিয়ের পর থেকে প্রায়ই শ্বশুরবাড়ির লোকজন টুম্পাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করত। তাদের অত্যাচার সহ্য করেও মেয়ে টুম্পা সংসার করছিলেন।
এ ব্যাপারে পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক হিরু বিকাশ বলেন, আজ বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত গৃহবধূর লাশটি উদ্ধার করেছি। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চমেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে । ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ করেনি । অভিযোগ পেলেই আমরা মামলা নথিভুক্ত করব।

এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm