খুলশীতে ওয়াসিম-হিরণ অনুসারীদের তাণ্ডব, পুলিশের গায়ে কুড়ালের কোপ

কাউন্সিলর ওয়াসিমের ৪ অনুসারী গ্রেপ্তার

0

চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী থানার ঝাউতলা এলাকায় বর্তমান কাউন্সিলর ওয়াসিম উদ্দিন ও সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন হিরণের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে আহত হয়েছেন পাহাড়তলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ। ওই সময় দুই পক্ষই দোকান ও গাড়ি ভাঙচুর করে এলাকায় রীতিমতো ত্রাসের রাজত্ব তৈরি করে।

হামলার শিকার হন পাহাড়তলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই খাজা এনাম এলাহী।
হামলার শিকার হন পাহাড়তলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই খাজা এনাম এলাহী।

শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকের এই সংঘর্ষের ঘটনায় ওই রাতেই আহত এসআই খাজা এনাম এলাহী বাদী হয়ে খুলশী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় আসামি করা হয় দুই পক্ষের ২৫ জনকে। এছাড়া অজ্ঞাতনামা ৩০-৪০ জনকেও আসামি করা হয়। তবে এই মামলায় বর্তমান ও সাবেক দুই কাউন্সিলর ওয়াসিম ও হীরণকে আসামি করা হয়নি বলে জানিয়েছে খুলশী থানার একটি সূত্র।

জানা গেছে, ১৩ নম্বর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন হিরণের অনুসারীরা শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বর্তমান কাউন্সিলর ওয়াসিম উদ্দিনের চৌধুরীর অনুসারীদের ওপর হামলা চালায়। এতে ওয়াসিমের অনুসারী মোহাম্মদ রাশেদ নামের এক যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় প্রতিপক্ষের লোকজন।

এ ঘটনার পরপরই ওয়াসিমের অনুসারীরা সংঘবদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে আসে। দুই পক্ষের মধ্যে এ সময় তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষ চলাকালে দুই পক্ষই দোকান ও গাড়ি ভাঙচুর করে। পুলিশ গিয়ে তাদের নিবৃত্ত করতে গেলে হামলার শিকার হন পাহাড়তলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই খাজা এনাম এলাহী।

Yakub Group

জানা গেছে, ঝাউতলা এলাকায় সংঘর্ষের খবর পেয়ে পাহাড়তলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই খাজা এনাম এলাহীর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় দুই পক্ষের মাঝে অবস্থান নিয়ে সংঘর্ষ ও ভাঙচুর থেকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করে পুলিশ। এ সময় হঠাৎ চাইনিজ কুড়াল দিয়ে এসআই এনামকে কোপ দেয় অজ্ঞাতনামা এক দুর্বৃত্ত। তার সঙ্গে ছিলেন আরও কয়েকজন। এ সময় আত্মরক্ষার্থে হাত দিয়ে চাইনিজ কুড়ালের আঘাত সামলাতে গিয়ে কুড়ালের হাতলে লেগে গুরুতর আহত হন এসআই খাজা এনাম।

পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪ জনকে আটক করে নিয়ে আসে। তারা সকলেই কাউন্সিলর ওয়াসিমের অনুসারী বলে জানা গেছে। তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে শুক্রবার রাতেই এসআই খাজা এনাম এলাহী বাদী হয়ে খুলশী থানায় মামলা দায়ের করে। তবে এই মামলায় আসামি করা হয় দুই পক্ষের আরও ২৫ জনকে।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, ‘দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে ভাঙচুর করছিল। পুলিশ ঘটনাস্থলে তাদের নিবৃত্ত করতে যায়। এ সময় তারা এসআই এনামকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কোপ দেয়। কিন্তু আত্মরক্ষার্থে হাত দিয়ে তিনি ঠেকাতে সক্ষম হওয়ায় বড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পান। তবে তার বাম হাতে জখম হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। সংঘর্ষ ও পুলিশের ওপর হামলায় যারা জড়িত, সবাইকে গ্রেপ্তারে অভিযানে নেমেছে পুলিশ।’

এমএফও/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm