বান্দরবানের নীলাচল মঞ্চে এবারের ‘ইত্যাদি’র পুরো পর্ব

0

বান্দরবানে ধারণ করা হয়েছে টেলিভিশনের জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র এবারের পর্ব। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৬০০ ফুট ওপরে টাইগার পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত অপরূপ পর্যটন কেন্দ্র নীলাচলে এবারের পর্বটি ধারণ করা হয় গত ১৬ নভেম্বর। বান্দরবানের ঐতিহ্যের সঙ্গে সাদৃশ্য রেখে তৈরি করা হয় মূল মঞ্চ। তার সামনে উপস্থিতি ছিল কয়েক হাজার দর্শকের।

দেশের ঐতিহ্যবাহী একমাত্র ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র এই বান্দরবানের পর্বটি একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচার হবে শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) রাত ৮ টার বাংলা সংবাদের পর। যথারীতি অনুষ্ঠানটি রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিওভিশন। স্পন্সরও যথারীতি কেয়া কসমেটিকস।

হানিফ সংকেত জানান, বান্দরবানের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের পাশাপাশি এবারের পর্বে রয়েছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত, দর্শনীয় ও পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানগুলোর ওপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। এছাড়াও রয়েছে পার্বত্য এলাকার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর চঞ্চল কান্তি চাকমার ব্যতিক্রমী উদ্যোগের ওপর একটি মানবিক প্রতিবেদন। পৃথিবীর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সমুদ্র সৈকতের পরিবেশের ওপর রয়েছে একটি সচেতনতামূলক প্রতিবেদন।

বাংলা ও মারমা গানের দুজন প্রতিষ্ঠিত শিল্পী আঁখি আলমগীর ও মান মান সিংয়ের কণ্ঠে থাকছে একটি অনুরাগের গান।
বাংলা ও মারমা গানের দুজন প্রতিষ্ঠিত শিল্পী আঁখি আলমগীর ও মান মান সিংয়ের কণ্ঠে থাকছে একটি অনুরাগের গান।

অনুষ্ঠানে গান রয়েছে দুটি। বাংলা ও মারমা গানের দুজন প্রতিষ্ঠিত শিল্পী আঁখি আলমগীর ও মান মান সিংয়ের কণ্ঠে থাকছে একটি অনুরাগের গান। এটি লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, সুর করেছেন হানিফ সংকেত, সংগীতায়োজন করেছেন মেহেদী।

এছাড়া বান্দরবানের সবুজ-শ্যামল রূপ বৈচিত্র্য নিয়ে মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের কথায়, হানিফ সংকেতের সুর ও মেহেদীর সংগীতায়োজনে আরেকটি গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেছেন বান্দরবানের ১১টি নৃগোষ্ঠী ও বাঙালি শিল্পীদের সমন্বয়ে শতাধিক নৃত্যশিল্পী। এতে কণ্ঠ দিয়েছেন চথুইফ্রু মারমা, কমল, হ্লামেচিং মারমা ও তানজিনা রুমা। মারমা ভাষায় গানটি অনুবাদ করেছেন চথুইফ্রু মারমা, নৃত্য পরিচালনা করেছেন প্রাণ গোপাল।

দীর্ঘদিন পর আবারও টিভি পর্দায় ফিরছেন এটিএম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান।
দীর্ঘদিন পর আবারও টিভি পর্দায় ফিরছেন এটিএম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান।

এবারের বিদেশি প্রতিবেদনে রয়েছে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের ‘পাথর নগরী’ বলে খ্যাত মামালাপুরামের কিছু স্মৃতিস্তম্ভের ওপর সচিত্র প্রতিবেদন।

দর্শক পর্বের নিয়ম অনুযায়ী ধারণস্থান বান্দরবানকে ঘিরে করা প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে উপস্থিত দর্শকের মাঝখান থেকে ৪ জন দর্শক নির্বাচন করা হয়। দ্বিতীয় পর্বে নির্বাচিত দর্শকরা বান্দরবানের কিছু উল্লেখযোগ্য বিষয় নিয়ে রচিত একটি নাট্যাংশে অভিনয় করেন।

নিয়মিত পর্বসহ এবারও রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশ কিছু সরস অথচ তীক্ষ্ণ নাট্যাংশ। যার একটি নাটকের মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর আবারও টিভি পর্দায় ফিরছেন খ্যাতিমান অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন