১২ দিনব্যাপী রবি দৃষ্টি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু

0

নগরীতে শুরু হয়েছে ১২ দিনব্যাপী ‘রবি-দৃষ্টি ডিবেট চ্যাম্পিয়নশীপ ২০১৯’। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) সকালে থিয়েটার ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব এবং প্রেস ইনিস্টিটিউ অব বাংলাদেশের (পিআইবি) চেয়ারম্যান আবেদ খান। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে দৃষ্টি চট্টগ্রামের সাংগঠনিক বিতর্ক আয়োজনের ২৭ বছর পূর্ণ হয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, আজকের বিতার্কিকরাই আগামী প্রজন্মের পথ-প্রদর্শক হবে। এরা সবাই যুক্তিবাদী এবং যুক্তির তীক্ষ্ণতাই দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে আমরা সমাজের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে বিভক্তি বিভাজনের সাথে জড়িয়ে যাই। এই বিভক্তি বিভাজন আমাদেরকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। এই বিভাজন ব্যক্তিগত পর্যায় ছাড়াও সমাজকেও আলাদা করছে। এর ফলে দেশও যেভাবে এগিয়ে যাওয়ার কথা সেভাবে এগোতে পারছে না।

সিটি মেয়র বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত বিতর্ক প্রতিযোগিতা উপলক্ষে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে লোগো আহবান করেন। এজন্য তিনি দৃষ্টি চট্টগ্রামের সংগঠকদের নির্দেশ দিয়ে মনোনীত লোগোর জন্য ১০ হাজার টাকার দেয়ারও ঘোষণা দেন।

গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব আবেদ খান বলেন, আগস্ট মাস জাতীয় শোকের মাস, এই মাসেই আমরা শোককে শক্তিতে পরিণত করার চেষ্টা করব। আর এর অন্যতম এক মাধ্যম হতে পারে বিতর্ক। হারতে না জানলে জেতা যায় না। অংশগ্রহণকারী সবাই জিতবে এমনটাও না।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ১৮ মিনিটের ভাষণই আমাদের স্বাধীনতার দ্বার খুলে দিয়েছে, আমাদেরকে দিয়েছে একটি স্বাধীন দেশ। আর এই স্বাধীন দেশের পতাকার মর্যাদা বহন করতে হবে আগামী প্রজন্মকে।

বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহা-ব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্য বলেন, আগের দিনে তথ্য বিনোদন ও শিক্ষার একমাত্র মাধ্যম ছিল বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশন। বর্তমানে অনেক মাধ্যমের প্রসার ঘটেছে। এর ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার ৪৮টি স্কুল নিয়ে আগামী মাস থেকে শুরু হতে যাচ্ছে আন্তঃস্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা। এটি সম্প্রচার হবে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্র থেকে।

রবির চিফ কর্পোরেট এন্ড রেগুলেটরি অফিসার মোহাম্মদ শাহেদ আলম বলেন বই হারাবে না, পত্রিকাও হারাবে না শুধু মাধ্যমগুলো পরিবর্তন হবে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে অনলাইন বুক ও অনলাইন পত্রিকাগুলো।

দৃষ্টি চট্টগ্রামের সভাপতি মাসুদ বকুল বলেন, এই প্রজন্মের শিক্ষার্থী অনেক বেশি মেধাবী, দক্ষ ও যুক্তিনির্ভর। যদি আমরা চট্টগ্রামকে নিয়ে কিছু করি সেটা হবে বাংলাদেশের অর্জন। চট্টগ্রামে যেভাবে বিলবোর্ড মুক্ত করা হল, দেশের সব শহরে যদি এটা অনুসরণ করে তাহলে আমরা সুন্দর বাংলাদেশ পাব।

দৃষ্টি চট্টগ্রামের সভাপতি মাসুদ বকুলের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাবের শাহের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন দৃষ্টি চট্টগ্রামের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাইফ চৌধুরী, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়ক শওকত বাঙ্গালী, সাবেক বিতার্কিক এবং কর্ণফূলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রতিযোগিতা কমিটির আহ্বায়ক শামসুল তাবরিজ সনেট, দৃষ্টির সহ সভাপতি শহিদুল ইসলাম, সাধারণ, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুদ্দিন মুন্না ও প্রতিযোগিতা কমিটির সমন্বয়কারী ও দৃষ্টির সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আরফাত প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এবারের রবি দৃষ্টি বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্কুল বিতর্কের ২৭তম এই আয়োজনে চট্টগ্রামের ৩৬টি স্কুল, ১৬তম বিশ্ববিদ্যালয় বিতর্কে সারা দেশের ৩২টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ১৭তম কলেজ বিতর্কে সারা দেশের ১৬টি কলেজ অংশগ্রহণ করবে। দেশের বৃহত্তম এই বিতর্ক প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠান হবে আগামী ৭ সেপ্টেম্বর। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য মন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ।

এসআর/এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন

ডাক্তারদের নিরাপত্তা সরঞ্জামের অভাবই মূল কারণ

আতঙ্কে রোগী দেখা বন্ধ চট্টগ্রামের বেসরকারি হাসপাতালে!

নির্দেশনা না মেনে হচ্ছিল সভা-বৈঠক-পরীক্ষার প্রস্তুতি

করোনা ঝুঁকিতে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের ‘পিয়ন টু চেয়ারম্যান’!

হ্যান্ড স্যানিটাইজারের উপকরণেও ভেজাল

২০০ টাকার জিনিস গায়ে লেখা ৪৫০, বিক্রি ৬০০ টাকায়