চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন শুরু

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু হয়েছে। ভর্তির আবেদন কার্যক্রম চলবে ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ১১টা ৫৯মিনিট পর্যন্ত। ১ অক্টোবর রাত ১২টা পর্যন্ত নির্ধারিত আবেদন ফি জমা দেওয়া যাবে।

রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় চবির আইটি ভবনে ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপ-উপাচার্য (রুটিন দায়িত্ব) প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। এ সময় বিভিন্ন ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর, প্রক্টরিয়াল বডি, বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও চেয়ারম্যান এবং ভর্তি কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে চবি উপাচার্য বলেন, আমরা গত বছরের ন্যায় এবারও প্রত্যেক ইউনিটে ভর্তি প্রক্রিয়া ও আবেদন ফি সমান রেখেছি। গত বছরের ন্যায় সকল কার্যক্রম নিজস্ব অটোমেশনে সম্পন্ন করা হবে। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে প্রতিটি ইউনিটে ডিনদের কমিটি কাজ করছে। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে হেল্পলাইন রয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সূত্রে জানা যায়, এবারে ৪টি ইউনিট ও ২টি উপ–ইউনিটের মাধ্যমে ভর্তি কার্যক্রম চলবে। ৪৮টি বিভাগ ও ৫টি ইনস্টিটিউটে মোট ৪ হাজার ৯২৬টি আসনের জন্য শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। এরমধ্যে সাধারণ আসন ৪ হাজার ১৮৯টি ও কোটায় আসন ৭৩৭টি। ভর্তির আবেদনের জন্য ইউনিট ও উপ-ইউনিট প্রতি একজন শিক্ষার্থীকে দিতে হবে ৪৭৫ টাকা।

আবেদনের যোগ্যতা

৪ অনুষদে মোট সাধারণ আসন ১ হাজার ২১৪টি। আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে (চতুর্থ বিষয়সহ) মোট জিপিএ ৭.৫০ এবং যেকোনো একটি পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ থাকতে হবে।

‘এ’ ইউনিট— উচ্চ মাধ্যমিকের বিজ্ঞান/কৃষি বিজ্ঞান গ্রুপের শিক্ষার্থীরা ‘এ’ ইউনিটের মাধ্যমে বিজ্ঞান অনুষদ, জীববিজ্ঞান অনুষদ, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ ও মেরিন সায়েন্স অ্যান্ড ফিশারিজ অনুষদভুক্ত সব বিভাগ/ ইনস্টিটিউটে আবেদন করার সুযোগ পাবেন।

‘বি’ ইউনিট— উচ্চ মাধ্যমিকের সব বিভাগে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা বি-ইউনিটের মাধ্যমে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত সব বিভাগ/ ইনস্টিটিউটে আবেদন করার সুযোগ পাবেন (নাট্যকলা, চারুকলা ও সংগীত বিভাগ ছাড়া)।

উপ ইউনিট বি-১— এর মাধ্যমে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত নাট্যকলা, চারুকলা ও সংগীত বিভাগে আবেদন করা যাবে। উপ-ইউনিট

উপ ইউনিট’বি-২’এর অধীনে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদ অধিভুক্ত চারুকলা ইনিস্টিউট, নাট্যকলা বিভাগ ও সঙ্গীত বিভাগের ভর্তি পরীক্ষার আবেদনের জন্যও একই যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়েছে।

‘বি’ ইউনিটের অধীনে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের সর্বনিম্ন মোট জিপিএ-৭ এবং একটিতে জিপিএ-৩.২৫; মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের সর্বনিন্ম দুটিতে মোট জিপিএ-৬.৫ এবং একটিতে জিপিএ-২.৭৫; ব্যবসায় শিক্ষা শাখার সর্বনিম্ন দুটিতে মোট জিপিএ-৭ এবং একটিতে জিপিএ-৩.২৫ থাকতে হবে।

‘সি’ ইউনিট— উচ্চ মাধ্যমিকের ব্যবসায় শিক্ষা বিভোগে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা সি-ইউনিটের মাধ্যমে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত সব বিভাগে আবেদন করার সুযোগ পাবে।

‘সি’ ইউনিটের অধীনে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক মিলিয়ে দুটিতে মোট জিপিএ-৭.৫ এবং একটিতে জিপিএ-৩.৫ থাকতে হবে৷

‘ডি’ ইউনিট—
উচ্চ মাধ্যমিকের (সকল গ্রুপ) শিক্ষার্থীরার ডি-ইউনিটের মাধ্যমে সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত সব বিভাগ, আইন অনুষদভুক্ত আইন বিভাগ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত সব বিভাগ (বিজ্ঞান ও মানবিক গ্রুপ) জীববিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা এবং মনোবিজ্ঞান বিভাগে (মানবিক গ্রুপ ) আবেদন করার সুযোগ পাবে।
উচ্চ মাধ্যমিকের (সকল গ্রুপ) শিক্ষার্থীরাই আবেদন করতে পারবে।

উপ ইউনিট ডি-১-এর মাধ্যমে শিক্ষা অনুষদভুক্ত ফিজিক্যাল অ্যাডুকেশন অ্যান্ড স্পোর্টস সায়েন্স বিভাগে আবেদন করার সুযোগ পাবে।

‘ডি’ ইউনিটের অধীনে সমাজবিজ্ঞান অনুষদ, আইন অনুষদ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ (আংশিক) ও জীববিজ্ঞান অনুষদের দুটি বিভাগের (আংশিক) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই ইউনিটে আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক মিলিয়ে সর্বনিম্ন জিপিএ-৭ এবং একটিতে জিপিএ-৩.২৫ থাকতে হবে৷

‘ডি১’ উপ-ইউনিটের অধীনে শিক্ষা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের যোগ্যতা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক মিলিয়ে সর্বনিম্ন জিপিএ-৬ এবং একটিতে জিপিএ-২.৫ থাকতে হবে৷

ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি

২৭ অক্টোবর বি ইউনিট, ২৮ অক্টোবর ডি ইউনিট, ২৯ অক্টোবর এ ইউনিট, ৩০ অক্টোবর সি ইউনিট, ৩১ অক্টোবর বি১ উপ-ইউনিট ও ডি১ উপ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা।

সকল বিভাগের পরীক্ষা অনুষ্ঠানের সময় সকাল ১০-১১টা। পরীক্ষার নির্ধারিত সময়ে ৩০ মিনিট পূর্বে হলে প্রবেশ করতে হবে।

এইচটি/এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন