চলে গেলেন চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর

0

চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান ও বয়োজ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আর নেই। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) রাতে রাজধানীর আসগর আলী হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। দীর্ঘদিন থেকে এই সাংবাদিক মাইলো ফাইব্রোসেসে (রক্তের ক্যানসার) আক্রান্ত ছিলেন। মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনুছের ছোট ভাই।

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীরের ছেলে অপূর্ব জাহাঙ্গীর গণমাধ্যমকে জানান, ৮ জুলাই বেলা ১১টা থেকে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তার বাবা। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মরহুমের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকালে শান্তিনগরে নিজ বাসভবনে তার মরদেহ নেওয়া হয়েছে। বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে । সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বাদ আসর তার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে শান্তিনগরের চামেলিবাগ জামে মসজিদে। জানাজা শেষে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানের দাফন করা হবে প্রবীণ এই সাংবাদিকের লাশ।

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর ১৯৫১ সালে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে জন্ম গ্রহণ করেন। রাজনীতি ও বিভিন্ন সমসাময়িক বিষয়ে সংবাদপত্রে নিয়মিত কলাম লিখতেন। নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গির কারনে তিনি সকলের কাছে একজন গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি ছিলেন। জাতীয় দৈনিক প্রথম আলো’ ও চট্টগ্রামের ‘দৈনিক আজাদী‘তে তিনি নিয়মিত লিখতেন।

ছাত্র জীবনে চট্টগ্রাম কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি সক্রিয় ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ১৯৭০ সালে তিনি দৈনিক পাকিস্তানে সাংবাদিকতা পেশায় যোগ দেন। এক দশক পর ১৯৮০ সালে তিনি প্রেস ইনষ্টিটিউট অব বাংলাদেশ-এ সাংবাদিক প্রশিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৬৮ সাল থেকে বেতার ও ১৯৭৬ সাল থেকে টিভি মিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত হন। চলতি ঘটনাবলী নিয়ে টক শো’র সফল মডারেটর হিসেবে তিনি বিশেষ পরিচিতি অর্জন করেছেন।

১৯৯৫ সালে তিনি সেন্টার ফর ডেভলপমেন্ট কম্যুনিকেশন নামে একটি বেসরকারি মিডিয়া সংস্থা গঠন করেন এবং এর নির্বাহী পরিচালকর দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জনের পাশাপাশি সাংবাদিকতায়ও মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেছেন। তিনি ঢাকার ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস (ইউল্যাব) এর মিডিয়া স্টাডিজ এ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগের খন্ডকালীন অধ্যাপক। সাংবাদিকতা, গণমাধ্যম, রাজনীতি ও অন্যান্য বিষয়ে তার লেখা ও সম্পাদিত বইয়ের সংখ্যা ২৭টি।

এফএম

Loading...
আরও পড়ুন