মিরসরাই ট্র্যাজেডির ৮ বছর পড়ার টেবিলে স্মৃতি হাতড়ে বেড়ান সাবিকের মা

0

আট বছর আগে মিরসরাইয়ে মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় চিরতরে হারিয়েছে বুকের মানিক সাবিবকে। আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্র সাকিব ২০১০ সালের ১১ জুলাই বন্ধুদের সাথে মিরসরাই সদরে ফুটবল খেলা দেখে ফেরার পথে নিহত হয়। ওই দিন সাকিব স্কুলে যাওয়ার সময় তার পড়ার টেবিলটি যে অবস্থায় ছিলো আট বছর পরও একই অবস্থায় আছে। তার মা পারভীন আক্তার পরম মমতায় প্রিয় সন্তানের পড়ার টেবিলটিকে আজো সেই অবস্থায় সাজিয়ে রেখেছেন। সেই টেবিলটায় স্মৃতি হাতড়ে বেড়ান বুকের মানিক সাকিবের।

ওই টেবিলে বই খাতা সব আছে ঠিক ঠাক। ড্রয়ারে ১৬৫ টাকা আছে আজো। ফুটবল, ক্রিকেট ব্যাট, কলম, পেন্সিল কোন কিছুরই নড়চড় হয়নি এতটুকুও। চেয়ারটি শুধু ফাঁকা, যেখানে বসতো সাকিব।
পারভীন আক্তার প্রিয় সন্তানের পড়ার টেবিলটিকে বানিয়ে রেখেছেন স্মৃতির মিনার হিসেবে। সেই স্মৃতি চিহ্নের দিকে নিরবে তাকিয়ে থাকেন আর কাঁদেন। আনমনে ছেলের ফিরে আসার প্রত্যাশায় থাকেন। সাকিবের ছোট বোন তাসনিম জাহান নিজ হাতে ভাইয়ের ছবি এঁকে টেবিলে সাজিয়ে রেখেছে।

মিরসরাই ট্র্যাজেডি দিবস আসলেই শোকের ঢেউ যেন আছড়ে পড়ে পারভীন আক্তারের। ফিরবেনা জেনেও স্কুল ফেরত সন্তানের মুখে মা ডাক শোনার অপেক্ষায় থাকেন। স্মৃতি চিহ্ন জড়িয়ে কাদেন অঝোরে। মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে প্রিয় সন্তানের এমন মর্মান্তিক মৃত্যুর কথা মনে আসলেই আবেগকে নিয়ন্ত্রন করা দায় হয়ে যায়।

মিরসরাই ট্র্যাজেডির অষ্টম বছরে প্রিয় সন্তানের পড়ার টেবিলের ছবি নিজের ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করে সেখানে পারভীন আক্তার লিখেছেন ‘ আমার সাকিবের সাজানো সেই পড়ার টেবিল’। ওই টেবিলে বই খাতা, ক্যালকুলেটর, ফাস্ট এইড বক্স এর সরঞ্জাম, টেবিল ক্যালেন্ডার সাজানো আছে। টেবিলের পাশেই আছে ক্রিকেট খেলার ব্যাট এবং স্ট্যাম্প।

পারভীন আক্তার বলেন, দূর্ঘটনার সময় সাকিব আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত ছিলো। পড়ালেখায় সে খুবব মেধাবী ছিলো। পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলা আর ছবি আঁকতো। তিনি বলেন, সেদিন যদি স্কুল কর্তৃপক্ষ খেলা দেখে আসার জন্য ট্রাকে ছাত্রদের উঠতে না দিতো তাহলে এতগুলো স্কুল ছাত্র মারা যেতো না।

তিনি বলেন, সেদিন এতগুলো শিক্ষার্থীকে ট্রাকে তুলে দেওয়া না হলো প্রাণহানী হতো আমার সাকিবের। সেই সাথে ৪৩ জন শিক্ষার্থীও নিহত হতো না। স্কুল শিক্ষার্থী পরিবহনে নীতিমালার পাশাপাশি সড়ক দূর্ঘটনায় দায়ী চালক ও সংশ্লিষ্টদের কঠোর শাস্তির বিধান রাখার দাবী জানান তিনি।

প্রসঙ্গত : ২০১১ সালের ১১ জুলাই মিরসরাই স্টেডিয়াম থেকে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল ফাইনাল খেলা শেষে ফেরার সময় শিক্ষার্থীদের বহনকারী একটি পিকআপ বড়তাকিয়া-আবুতোরাব সড়কের সৈদালী এলাকায় পাশের একটি ডোবায় উল্টে যায়। যেখানে ৪৪ জন স্কুল ছাত্র সহ ৪৫ জন নিহত হন।

Loading...
আরও পড়ুন