১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি দিল অমিত মুহুরী হত্যায় অভিযুক্ত রিপন

0

কারাগারের ভেতর খুন হওয়া দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরী হত্যামামলায় নগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পাঁচ দিনের জিজ্ঞাসাবাদে যা বলেছেন, সেই একই কথা বলে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন রিপন নাথ। তবে রিপনের এ স্বীকারোক্তিতে সন্তুষ্ট নয় তদন্ত দল। তাই এটিকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড হিসেবে ধরেই তদন্তকাজ এগিয়ে নিতে চায় ডিবির তদন্ত দল।

মঙ্গলবার (১১ জুন) চট্টগ্রাম অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মহিউদ্দিন মুরাদের আদালতের খাস খামরায় রিপন এ স্বীকারোক্তি দেন। দুই পৃষ্ঠার লিখিত স্বীকারোক্তিতে অমিতের ওপর রাগের মাথায় নিজ হাতে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে খুন করেছেন বলে স্বীকার করেন তিনি। আদালত পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরির্দশক আজিজ আহমেদ।

এর আগে গত সোমবার (৩ জুন) একই আদালতে হাজির করা হয়েছিল রিপন নাথকে। এ সময় প্রথমে তাকে জেলারের অমিত হত্যা মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানোর আবেদনের শুনানি হয়। আদালত তাকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আদেশ দেন। পরে রিপনকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করলে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এরপর গত বৃহস্পতিবার (৬ জুন) থেকে নিজেদের হেফাজতে নেয় মামলার তদন্ত সংস্থা ডিবি। তবে জিজ্ঞাসাবাদে রিপন অত্যন্ত ধূর্ততার সঙ্গে নানা প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গেছেন। সব প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন, ঘুমের স্থান পরিবর্তন করতে অমিতের চাপ, অপমান ও গালিগালাজ করায় প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে রাগের মাথায় অমিতকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে খুন করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার আচরণ অস্বাভাবিক বলেও লক্ষ্য করেছেন তদন্ত দল।

তবে ডিবির তদন্ত দল তার কাছে গত পাঁচ দিনের রিমান্ডে যে পাঁচটি প্রশ্নের উত্তর বের করার সংকল্প করেছিল তার বেশিরভাগেরই উত্তর আসেনি ১৬৪ ধারার স্বীকারোক্তিতে। এজন্য মামলাটি নিবিড়ভাবে তদন্ত করতে চায় তদন্ত দল। রিপনের কথাই যে শেষ কথা সেটা না ধরে আরো নানা সোর্সের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে নিজের খুনের বাইরেও কারাগারের অনেক অনিয়ম ও অমিতের নানা অনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছেন রিপন। এসব তথ্যও যাচাই বাছাই করা হচ্ছে তদন্ত দলের পক্ষ থেকে।

Loading...
আরও পড়ুন