বুনন ও নকশায় নতুনত্ব এনেছে কৃষ্টি বুটিকস

0

বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষ্যে কাপড় প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর চেষ্টা থাকে গ্রাহককে ভিন্ন কিছু দেওয়ার। ঈদে সেই চেষ্টা যেন নতুনত্ব পায় আরো।এবার ঈদকে সামনে রেখে চট্টগ্রামের দেশীয় কাপড় প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান কৃষ্টি বুটিকস বুনন ও নকশায় এনেছে নতুনত্ব ও আধুনিকতা।

চট্টগ্রামের অন্যতম অভিজাত বিপণি বিতান আফমি প্লাজার তৃতীয় তলায় এই প্রতিষ্ঠানেগিয়ে ক্রেতাদের ভীড় দেখা গেল।
ক্রেতাদের জন্যে মসলিন শাড়ি, সিল্ক মসলিন শাড়ি, সিল্ক মসলিন ড্রেস, কটন শাড়ি, কটনের থ্রি-পিস, বেড-কাভার, বাহারি ডিজাইনের ছোট-বড় কাঁথা, শিশুদের পোশাক, পাঞ্জাবি, হিজাব, শাল, ওয়ান পিস, টু-পিসসহ সব ধরনের পোশাক নিয়ে সাজানো হয়েছে কৃষ্টি বুটিকস।
তরুণ উদ্যোক্তা ও ফ্যাশন ডিজাইনার নূজহাত নূয়েরী কৃষ্টির হাত ধরে গড়ে উঠেছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটির বিক্রয়কর্মীর সাথে কথা বলে জানা যায়, এখানে সিল্ক মসলিন ড্রেস, কটন শাড়ি বিক্রি হচ্ছে সাড়ে চার থেকে শুরু করে সাড়ে ছয় হাজার টাকা পর্যন্ত, কটনের থ্রি-পিস ২ হাজার টাকা থেকে শুরু করে সাড়ে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত। মসলিন শাড়ি ১৪ হাজার ৫০০ টাকা। সিল্ক মসলিনও একই দাম। বেড-কাভার দুই হাজার ২৫০ টাকা, ধরন ভেদে পাঞ্জাবির দাম এক হাজার ছয়শ থেকে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত। ব্লাউস পিস ১ হাজার ৫৫০ টাকা। হাতের কাজ করা বাহারি ডিজাইনের বড় কাঁথার দাম পাঁচ হাজার টাকা, বেবিকাঁথা পাওয়া যায় ৩৫০ থেকে ৫৫০ টাকায়, ওয়ান পিস এক হাজার ৪৫০ টাকা, টু-পিস এক হাজার ৯৫০ টাকা করে। শিশুদের পোশাক ৪৫০-১২৫০ টাকা পর্যন্ত, হিজাব ৫৫০-৬৫০ টাকা ও শাল পাওয়া যাবে এক হাজার ৮৫০টাকায়।

কৃষ্টি বুটিকসের স্বত্বাধিকারী নূজহাত নূয়েরী কৃষ্টি বলেন, পোশাকের ডিজাইন-নকশা সবকিছুই ঈদ উপলক্ষ্যে করাহয়েছে।এবার ঈদে বর্ষা ও গরমের প্রভাব থাকবে। ফলে পোশাকে ভিন্নতা আনার দিকে মনোযোগ দিয়েছি।

আরএইচ

Loading...
আরও পড়ুন