আক্রান্ত
১৪৪৫০
সুস্থ
২৩৩১
মৃত্যু
২৩৩

৫ সেকেন্ডে আইএমইআই পাল্টিয়ে নামিদামি শপিংমলেই বিক্রি চোরাই মোবাইল

0

চুরি যাওয়া বা বিভিন্ন অপরাধমূলক কাজে ব্যবহৃত মোবাইল সেট নতুন রূপে স্থান পাচ্ছে নগরীর নামিদামি শপিংমলে। সফটওয়্যারের মাধ্যমে ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইক্যুপমেন্ট আইডেন্টিটি (আইএমইআই) নম্বর পরিবর্তন করে বাজারে আবার নতুন রূপে বিক্রি করা হচ্ছে এসব মোবাইল সেট। নগরীতে দীর্ঘদিন ধরেই একটা চক্র এই কাজ করে আসছিল প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে। অবশেষে রোববার (১২ জুলাই) কোতোয়ালী থানা পুলিশের একটি টিম ওই চক্রের এক সদস্যকে হাতনাতে ধরতে সক্ষম হয়।

তার নাম আহসান হাবীব (২৪)। সে চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার সোনাকানিয়া ইউনিয়নের হাতিয়ারপুল বাজার এলাকার করিম সওদাগারের বাড়ির আবুল কাশেমের ছেলে।

কোতোয়ালী থানার সূত্রে জানা যায়, নগরীর বিভিন্ন স্থানে মিসিং কিংবা চুরি হওয়া কিংবা বিভিন্ন অপরাধ কাজে ব্যবহৃত মোবাইল সেট নানা প্রক্রিয়ায় রিয়াজউদ্দিন বাজার কেন্দ্রিক বিভিন্ন মোবাইল দোকানে আসে। সেই সুযোগে দীর্ঘদিন ধরে নানা প্রক্রিয়ায় মোবাইল ব্যবসার আড়ালে বিভিন্ন অপরাধ কাজে ব্যবহৃত মোবাইল সেট সংগ্রহ করে আসছিল আহসান হাবীব। আর্থিক লেনদেনের বিনিময়ে মোবাইল সেটের মূল আইএমইআই নম্বর ও প্যাটার্ন পরিবর্তন, মোবাইল ফ্লাশ কাজে জড়িত আটক আহসান হাবিব। পরিবর্তন করা এসব সেট নামিদামি বিভিন্ন শপিংমলে বিক্রি করে দেওয়া হয়।

রোববার (১২ জুলাই) বিকেল ৫টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোতোয়ালী থানা এলাকার তামাকুমন্ডি লেইনের হাসিনা হক মার্কেটের নিচতলায় অভিযান চালানো হয়। এসময় ভিন্ন ব্র্যান্ডের চোরাই মোবাইল সেটের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করার সময় হাতেনাতে ধরা হয় আহসান হাবীবকে। এসময় তার কাছ থেকে আইএমইআই পরিবর্তন কাজে ব্যবহারিত দুটি ল্যাপটপ ৫টি মোবাইল সেটসহ বিভিন্ন ডিভাইস উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ স্বীকার করেছে সে কোনও মোবাইল বিক্রেতা নয়। মূলত চোরাই ও অপরাধ কাজে ব্যবহৃত মোবাইল সেট সংগ্রহ করে আর্থিক লেনদেনের বিনিময়ে সেটের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করাই তার কাজ। পরে বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় নগরীর বিভিন্ন শপিংমলে সেটগুলো বিক্রি করে দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, আমরা এই ধরনের অপরাধীদের অনেকদিন ধরে খুঁজছিলাম। রোববার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ চক্রের একজনকে গ্রেপ্তার করি। সেই সাথে দুটি ল্যাপটপ, ৫টি মোবাইলসহ বিভিন্ন ডিভাইস উদ্ধার করি।

তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তার আহসান হাবীবের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তার সাথে আরও কারা জড়িত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

আরএ/এসএ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm