আক্রান্ত
২০২৭৭
সুস্থ
১৫৮০১
মৃত্যু
৩০১

৪৮ ঘন্টা সময়, বাজার থেকে তুলে নিতে হবে স্যাভলন হ্যান্ড স্যানিটাইজার

0

বিষাক্ত মিথানলের উপস্থিতি থাকায় এসিআই কোম্পানির হ্যান্ড স্যানিটাইজার আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বাজার থেকে প্রত্যাহার করে নিতে হবে। এই আদেশ দিয়েছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এর আগে প্রতিষ্ঠানটিকে এক কোটি টাকা জরিমানা করা হয়।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ‘মিথানল দিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানানোর কারণে এসিআইকে এক কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তাছাড়া ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে মিথানল দিয়ে বানানো তিনটি ব্যাচের হ্যান্ড স্যানিটাইজার মার্কেট থেকে প্রত্যাহার করতে আদেশ দেওয়া হয়েছে।’

রোববার (১১ অক্টোবর) রাতে প্রতিষ্ঠানটির রাজধানীতে এসিআই কোম্পানির মিরপুর ডিপোতে অভিযান চালিয়ে এসিআই কোম্পানিকে এক কোটি টাকা জরিমানা করে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে যেখানে ব্যবহার করার কথা আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল ও ইথানল, দেশের নামি প্রতিষ্ঠান এসিআই কোম্পানি তাদের স্যাভলন ব্র্যান্ডের হ্যান্ড স্যানিটাইজারে সেখানে ব্যবহার করছিল বিষাক্ত মিথাইল অ্যালকোহল বা মিথানল। মিথানল শুধু বিষাক্তই নয়, ত্বকের জন্যও এটা বেশ ক্ষতিকর। মিথানল পান করলে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে। মিথানলের দাম ইথানলের পাঁচ ভাগের একভাগ। এ কারণে বাড়তি লাভের আশায় এসিআই কোম্পানি তাদের স্যানিটাইজারে বিষাক্ত ওই উপাদানটি ব্যবহার করে যাচ্ছিল।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম বলেন, অভিযানে স্যাভলন ইন্সট্যান্ট হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ২৫ মিলিগ্রামের টিউবের তিনটি ব্যাচের পণ্যে ক্ষতিকর মিথানল পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, নিম্নমানের হ্যান্ড স্যানিটাইজার বাজারজাত ও মজুতের দায়ে প্রতিষ্ঠানটিকে ১ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। কোম্পানিটির তৈরি এসব হ্যান্ড স্যানিটাইজার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হবে।

স্যাভলনের এই পণ্যটি তৈরি হয়েছে গাজীপুরের কোনাবাড়িতে এসিআইয়ের নিজস্ব কারখানায়।

এর আগে গত ৪ অক্টোবর জনস্বার্থ বিবেচনায় বাজারে থাকা বিভিন্ন কোম্পানির ১৪টি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ল্যাবে নিয়ে পরীক্ষা করে র‌্যাব। ওই পরীক্ষার ফলাফল থেকে জানা যায়, এসিআইয়ের স্যাভলন ব্র্যান্ডের হ্যান্ড স্যানিটাইজারে রয়েছে বিষাক্ত মিথানলের উপস্থিতি।

এরপর অভিযান চালিয়ে এসিআইয়ের গাজীপুরের কোনাবাড়ীতে অবস্থিত কারখানাটি সিলগালা করেন দেন র‍্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। কারখানাটিকে ১৭ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়।

র‌্যাবের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, স্যাভলন ব্র্যান্ডের এই হ্যান্ড স্যানিটাইজারে উৎপাদনকারী কারখানার যে ঠিকানা দেওয়া হয়েছে, বাস্তবে সেখানে এসিআইয়ের কোনো কারখানার অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, জনস্বার্থ বিবেচনায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তৈরি ১৪টি স্যানিটাইজার পণ্য ল্যাবে নিয়ে পরীক্ষা করে র‌্যাব। এর মধ্যে কয়েকটিতে ২ থেকে ৪ শতাংশের মতো বিষাক্ত মিথানলের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। কিন্তু এসিআইয়ের স্যাভলন হ্যান্ড স্যানিটাইজার পুরোটাই মিথানল দিয়ে বানানো। অথচ প্রতিষ্ঠানটি স্যানিটাইজারের প্যাকেটে উল্লেখ করেছে ইথানল ও আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহলের কথা।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm