২৫০ নারীর ব্রেস্ট স্ক্রিনিং হলো চট্টগ্রামের আইআইইউসিতে, হল সেমিনারও

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি) এর ফার্মেসী বিভাগের উদ্যোগে ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই সেমিনারের পাশাপাশি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫০ জন ছাত্রী ও তাদের মায়েদের ব্রেস্ট স্ক্রিনিং করা হয়।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) আইআইইউসি’র কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়। ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাসের কর্মসূচি হিসেবে এ সেমিনার আয়োজন করে ফার্মেসী বিভাগ।

করোনায় স্বাভাবিক স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত হওয়ার প্রেক্ষাপটকে সামনে রেখে এ বছর পালিত হচ্ছে ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস। এ বছরের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, ‘একা নয়, একে অন্যের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ব্রেস্ট ক্যান্সারকে জয় করতে হবে।’

আইআইইউসি’র এ আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর আনোয়ারুল আজিম আরিফ, বিশেষ অতিথি মোসাম্মৎ রিজিয়া সুলতানা চৌধুরী (সদস্য, বোর্ড অফ ট্রাস্টিস, আইআইইউসি), উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ মছরুরুল মাওলা, বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আকতার সাঈদ, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম মাহমুদুল হক পল্লব (মার্কেটিং এন্ড সেলস, বিকন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড), ফার্মেসী বিভাগের চেয়ারম্যান এটিএম মোস্তফা কামাল, সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আবু সাঈদ, সহকারী অধ্যাপক কাজী আশফাক আহমেদ চৌধুরী, ড. হযরত আলী, এএসএম আলী রেজা, মোসাম্মৎ শামীমা নাসরিন, প্রভাষক মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম, রিনিআরা খাতুন, সানজিদা ইসলাম, ফেরদৌসী আক্তারসহ ফার্মেসি বিভাগের অন্যান্য শিক্ষকরা।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিকন ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের এসিস্ট্যান্ট সেলস ম্যানেজার ফরহাদ হোসাইন মোল্লা, একই বিভাগের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার জহির উদ্দিন বাবর।

প্রধান আলোচক ডা. শেফাতুজ্জাহান (বিভাগীয় প্রধান, মেডিকেল অনকোলজি ও রেডিওথেরাপী বিভাগ, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল) ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা ও রোগ মুক্তি বিষয়ক তার বক্তব্য প্রকাশ করেন। এদিকে সেমিনারের আগে আইইউসি’র ২৫০ জন ছাত্রী ও তাদের মায়েদের ব্রেস্ট স্ক্রিনিং করা হয়। চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের মেডিকেল অনকোলজি ও রেডিওথেরাপী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. শেফাতুজ্জাহান ও তার টিম এই ব্রেস্ট স্ক্রিনিং সম্পন্ন করেন।

সেমিনারে বক্তারা বলেন, ‘অক্টোবর মাসব্যাপী পালন করা হয় ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা। এটি একটি বার্ষিক প্রচারণা। এ মাসে বিভিন্ন প্রচার প্রচারণার মাধ্যমে সবাইকে সচেতন করা হয়। বিশেষ করে নারীদের সচেতন করাই এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য।’

তারা আরও বলেন, ‘প্রথম এ মাসটি পালন করা শুরু হয় ১৯৮৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রে। কান্সারের মধ্যে সারা বিশ্বে নারীদের বেশি হচ্ছে ব্রেস্ট ক্যান্সার। গবেষণায় দেখা গেছে, প্রাথমিক পর্যায়ে রোগটি নির্ণয় করা গেলে বেশির ভাগ ব্রেস্ট ক্যান্সার চিকিৎসায় সম্পূর্ণ ভাল হয়। তাই সচেতনতাই এখানে মুখ্য ভূমিকা পালন করে।’

এছাড়া এই আয়োজনের সাইন্টিফিক পার্টনার ছিল বিকন ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেড এবং বিশেষ সহযোগিতায় ছিল অনকোলজি ও রেডিওথেরাপি বিভাগ, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!