২০ জনকে পিটিয়ে চবি ছাত্রলীগ ফের পুরনো চেহারায়, দফায় দফায় সংঘর্ষ

শোকের মাস আগস্ট না যেতেই পুরনো রূপে ফিরেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষ লিপ্ত হয়েছে সিক্সটি নাইন ও সিএফসি গ্রুপ। এতে অন্তত ২০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

২০ জনকে পিটিয়ে চবি ছাত্রলীগ ফের পুরনো চেহারায়, দফায় দফায় সংঘর্ষ 1

সোমবার (০৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ প্রাঙ্গণে দুই কর্মীর মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে মুহূর্তেই তা সংঘর্ষ রূপ নেয়। ছড়িয়ে পরে শাহ আমানত ও শাহজালাল হলেও৷ এতে উভয় পক্ষের ২০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে ১০ জনকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। অপর ১০ জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

২০ জনকে পিটিয়ে চবি ছাত্রলীগ ফের পুরনো চেহারায়, দফায় দফায় সংঘর্ষ 2

বিশ্বিবদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, দুপুরে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের অদূরে সিক্সটি নাইন গ্রুপের এক কর্মীকে মারধর করেন সিএফসি গ্রুপের কর্মীরা। এ খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মীরা শাহজালাল হলের সামনে ও সিএফসি গ্রুপের কর্মীরা শাহ আমানত হলের সামনে অবস্থান নিয়ে ব্যাপক সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে প্রক্টরিয়াল বডি ও পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে।

Yakub Group

পরবর্তীতে সাড়ে চারটার দিকে সিএফসির এক নেতা ভাত খেতে গেলে সিক্সটি নাইনের কর্মীরা তাকে মারধর করে। এই খবর জানাজানি হলে দুই গ্রুপ আবারও মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে আধা ঘন্টা ধরে ইটপাটকেল ছোঁড়াছুড়ি করে। পরবর্তীতে পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডি পুনরায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সন্ধ্যায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ক্যাম্পাসে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। বর্তমানে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। পাশাপাশি আমরা নিজেরাও তথ্য উপাত্ত নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবো।

একই কথা বলেছেন শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি রেজাউল হক রুবেলও।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভুঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, দুপুরে আমরা বলেছিলাম অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। কিন্তু বিকালে সিক্সটিনাইন গ্রুপ সিএফসি গ্রুপের একজনকে হোটেলের ভেতর মারধর করেছে। এরপরই দুই গ্রুপের মধ্যে ঢিল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়।

তিনি বলেন, পরে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় প্রক্টোরিয়াল বডি প্রত্যক্ষ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেছে। দুই গ্রুপের কর্মীদের নিজ নিজ হলে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এমআইটি/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm