১৬ দিনেও উদ্ধার হয়নি রাঙামাটির অপহৃত ছাত্রলীগ নেতা, তিন সড়কে ৩৬ ঘণ্টার অবরোধ

রাঙামাটির রাজস্থলীতে এক ছাত্রলীগ নেতাকে ‘অপহরণের’ ঘটনায় উদ্ধার দাবিতে উপজেলার তিনটি সড়কে ৩৬ ঘণ্টার অবরোধ পালিত হয়েছে। গত মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে শুরু হওয়া অবরোধ শেষ হয় বুধবার (২১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায়।

অবরোধের কারণে মঙ্গলবার ভোর থেকে রাজস্থলী-বান্দরবান, বাঙ্গালহালিয়া-রাজস্থলী ও বাঙ্গালহালিয়া-রাঙামাটি সড়কে সকল ধরনের যাত্রীবাহী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। অবরোধের কারণে দুর্ভোগে পড়েন এ সড়কে যাতায়াতকারীরা। বান্দরবান থেকে অনেকেই চট্টগ্রাম হয়ে রাঙামাটিতে ফিরেছেন।

স্থানীয়ভাবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে রাজস্থলী উপজেলার রাজস্থলী-রাঙামাটি-বান্দরবান সড়কে সব ধরনের যাত্রীবাহী যান চলাচল বন্ধ ছিল। মঙ্গলবার বাঙ্গালহালিয়া বাজারে সাপ্তাহিক হাটবার থাকলেও সাধারণ মানুষের উপস্থিতি তুলনামূলক কম দেখা গেছে। বুধবার রাজস্থলী উপজেলা সদরে হাটবার থাকলেও মানুষের তেমন উপস্থিতি মেলেনি। উপজেলার গাইন্দ্যা ও ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের মানুষ পায়ে হেঁটে বাজারে এসে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করেছেন। দু’দিনের অবরোধে সমর্থনকারীরা উপজেলার বাস স্টেশন, রাজস্থলী বাজার, বরইতলা, ইসলামপুর বাজার, মুক্তিযোদ্ধা সড়ক, পাথরবন পাড়া, শফিপুর, বাঙ্গালহালিয়া বাজারসহ বিভিন্নস্থানে পিকেটিং করেছে। অবরোধে কোথাও কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

বাঙ্গালহালিয়া সচেতন নাগরিক সমাজের সভাপতি এমদাদুল হক মিলন জানান, সালাহ উদ্দিনকে উদ্ধারের দাবিতে মঙ্গলবার-বুধবার ৩৬ ঘণ্টার অবরোধ পালিত হয়েছে। অপহরণের ১৬ দিন অতিবাহিত হলেও এখনো সালাহ উদ্দিনের কোনো সন্ধান মেলেনি। নিখোঁজ ব্যক্তি উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে এবং প্রয়োজনে আরো কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।

রাজস্থলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন জানান, রাজস্থলীতে সচেতন নাগরিক সমাজের ডাকা দু’দিনের অবরোধ কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। নিখোঁজ সালাহ উদ্দিনকে উদ্ধারের বিষয়টি পুলিশ সুপারের নির্দেশে সব ধরনের কৌশল অবলম্বন করা হচ্ছে।

এর আগে গত ৪ ডিসেম্বর সকালে রাজস্থলী উপজেলার ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের আমতলীপাড়া এলাকা থেকে মো. সালাহ উদ্দিন নামের ওই ছাত্রলীগ নেতাকে অপহরণ করা হয়। এ ঘটনায় সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) দায়ী করে আসছে তার পরিবার। ঘটনার পরদিন ৫ ডিসেম্বর রাজস্থলী থানায় নিখোঁজ দাবি করে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে সালাহ উদ্দিনের বড় ভাই মো. আল আমিন হোসেন।

Yakub Group

এরপর ১০ ডিসেম্বর রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ মাঠে ‘বাঙ্গালহালিয়া সচেতন নাগরিক সমাজ’র ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। তবে অপহরণের দাবি করলেও এখনো কেউ মুক্তিপণ দাবি করেনি। নিখোঁজ মো. সালাহ উদ্দিন বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ও শফিপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত মুজিবুর রহমানের ছেলে। সালাহ উদ্দিন উপজেলা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক ও পেশায় একজন স্ক্যাভেটর চালক।

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm