সৌদি আরবে খুন হওয়া সেলিমের তিন ঘাতকের মৃত্যুদণ্ড

0

সৌদি আরবে খুন হওয়া রাঙ্গুনিয়ার সেলিমের (৪৭) তিন খুনির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। চার বছর আগে সৌদি আরবের হাফার আল বাতেন জেলার কাইছুমায় খুন হন।

সৌদি আরবের আদালতের দেওয়া রায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ওই তিন ব্যক্তি হলেন আবদুর রহমান বিন সুলতান আদদুয়াইশ আসসাউদি, ইলান আলী আবদুল্লাহ আল ইয়ামানি, আহমদ হাছান বশির আদওয়ানি। গত ১৯ জুন এই তিনজনের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়।

নিহত সেলিমের বাড়ি রাঙ্গুনিয়া উপজেলার চন্দ্রঘোনা-কদমতলী ইউনিয়নের কদমতলী গ্রামে। তিনি মৃত মেম্বার ছৈয়দ আহমদের পুত্র। দীর্ঘদিন ধরে সেলিম সৌদি আরবের হাফার আল বাতেন জেলার কাইছুমা এলাকায় ব্যবসা করে আসছিলেন। সেখানে তিনি তরিতরকারি ও ফলের ব্যবসা করতেন।

সৌদি আরবের হাফর আল বাতিন জেলার ছাদউই মরুভূমিতে খুন করা হয় রাঙ্গুনিয়ার সেলিমকে।
সৌদি আরবের হাফর আল বাতিন জেলার ছাদউই মরুভূমিতে খুন করা হয় রাঙ্গুনিয়ার সেলিমকে।

২০১৫ সালের ১৫ ফেব্রুয়রি সৌদি আরবের একজন ও ইয়েমেনের দুই নাগরিক মিলে সেলিমকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ওই বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি সৌদি আরবের হাফর আল বাতিন জেলার ছাদউই মরুভূমির বালুর পাহাড় থেকে মোহাম্মদ সেলিমের গলিত লাশ উদ্ধার করে। ১৫ ফেব্রুয়ারি সন্ত্রাসীরা তাকে অপহরণের পর হত্যা করে লাশ গুম করে। এ ঘটনায় স্থানীয় পুলিশ একজন সৌদি ও দুই ইয়েমেনি নাগরিকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করে। তাদের স্বীকারোক্তি অনুসারে ২৫ ফেব্রুয়ারি ছাদউই মরুভূমির বালির নিচে চাপা দেওয়া তার লাশ পুলিশ উদ্ধার করে।

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় পরিবারের উপার্জনক্ষম একমাত্র ব্যক্তির করুণ পরিণতিতে পুরো পরিবারে নেমে আসে অন্ধকার।

নিহত সেলিমের ভাই জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমার ভাইয়ের খুনিদের বিচার হওয়ায় সৌদি সরকারের কাছে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন