সেনা ও নৌঘাঁটিতে মুজিব বর্ষের ক্ষণগণনা শুরু

0

চট্টগ্রাম সেনানিবাসে বর্ণিল আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে মুজিব বর্ষের ক্ষণগণনার কাউন্ট ডাউন ক্লক উদ্বোধন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম জিওসি ২৪ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল এসএম মতিউর রহমান ওএসপি এএফডব্লিউসি, পিএসসি এর উদ্বোধন করেন। তিনি সুইচ টিপে ক্লক চালু করেন এবং বেলুন ও কবুতর উড়ান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিকেলে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে মুজিব বর্ষের কাউন্ট ডাউন ক্লকগুলো উদ্বোধন করার সাথে চট্টগ্রাম সেনানিবাসেও এর সূচনা করা হলো।

সূচনাকালে ব্যান্ডের মূর্ছনায় জয় বাংলা, বাংলার জয় গানটি পরিবেশন করা হয়। একই সাথে বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানে এক আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বেলুন উড়ানো কর্মসূচিতে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

এসময় চট্টগ্রাম সেনাবাহিনীর সকল অফিসার, জেসিও, এনসিও, অঞ্চলের ঊর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা, সেনা সদস্য, সেনাবাহিনী পরিচালিত বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম নৌঘাঁটির বিএনএস ঈসা খান’র প্রধান ফটকে বর্ণিল আয়োজনে মুজিববর্ষের ক্ষণগণনার কাউন্ট ডাউন ক্লক উদ্বোধন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কমান্ডার চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চল রিয়ার অ্যাডমিরাল এম আবু আশরাফ।

এ সময় চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের ঊর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা, নৌ সদস্য, নৌবাহিনী পরিচালিত বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, স্থানীয় জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।

নৌবাহিনী ও সেনাবাহিনীর অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের বিভিন্ন তথ্যচিত্র, জাতির পিতার ছবি সম্বলিত ব্যানার, পোস্টার প্রদর্শিত হয়। উড়ানো হয় শত শত বেলুন ও পায়রা। বড় পর্দায় দেখানো হয় বিটিভি সম্প্রচারিত জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডের মূল অনুষ্ঠান।

উল্লেখ্য, ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। দীর্ঘ ৯ মাস পাকিস্তানের কারাগারে থেকে মুক্ত হয়ে এই দিনে দেশে ফিরে আসেন তিনি। দিনটিকে উপলক্ষ করে মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা উদ্বোধন করা হলো।

এএস/এসএ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন