s alam cement
আক্রান্ত
১০১৩১২
সুস্থ
৮৬১৬৯
মৃত্যু
১২৮২

সাড়ে চার মাস পর প্রাণ ফিরছে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে

0

মহামারি করোনাভাইরাস রোধে বিধিনিষেধ আরোপের প্রায় সাড়ে চার মাস পর বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) থেকে শর্ত সাপেক্ষে পর্যটকদের জন্য কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকত ও অন্যান্য পর্যটনকেন্দ্র উন্মুক্ত হচ্ছে। দীর্ঘদিন পর পর্যটন ও বিনোদন কেন্দ্রগুলো খুলে দেয়ায় পর্যটকদের বরণ করার জন্য প্রস্তুত হয়েছে কক্সবাজার।

কক্সবাজার ও আশপাশের হোটেল-মোটেল ও রেস্তোরোঁগুলো পর্যটকদের বরণ করতে পরিচ্ছন্নতা শেষে উপযোগী করে তোলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) আনুষ্ঠানিকভাবে সমুদ্র সৈকত ও পর্যটন কেন্দ্রগুলো খোলার খবরে বুধবার (১৮ আগস্ট) বিকেল থেকেই পর্যটকরা আসা শুরু করেছেন। এতে দীর্ঘদিন পর ফের প্রাণচাঞ্চল্য ফিরছে কক্সবাজারের পর্যটন কেন্দ্রগুলোয়।

সমুদ্র সৈকতের পাশাপাশি হিমছড়ি, ইনানী, সাবরাং এক্সক্লুসিভ জোন, ন্যাচারপার্ক, বার্মিজ মার্কেট, ডুলহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কসহ অন্যান্য কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত হয়েছে। তবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিন যাওয়ার কোনো তোড়জোড় নেই।

হোটেল-মোটেল এলাকায় গিয়ে দেখে গেছে, বেশিরভাগ হোটেল ও গেস্ট হাউজের কক্ষ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে পর্যটকদের বরণ করার জন্য প্রস্তুত। কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও কাজে ফিরছেন। সেই সঙ্গে সৈকতের ছোট ছোট দোকান, হকার, শামুক-ঝিনুকের দোকানগুলোও খোলা হয়েছে।

কক্সবাজার টুরিস্ট পুলিশের এসপি মো. জিল্লুর রহমান জানিয়েছেন, আমরা নিরাপত্তা দেয়ার জন্য প্রস্তুত। প্রতিটি পয়েন্টে কাজ করবে টিম। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালত থাকবে মাঠে। অন্যদিকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটকদের ভ্রমণের আহবান জানিয়েছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সুফিয়ান।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এ বছরের ১ এপ্রিল বন্ধ ঘোষণা করা হয় দেশের সব পর্যটনকেন্দ্র। প্রায় চার মাস পর কক্সবাজারের সব পর্যটনকেন্দ্র খোলা হচ্ছে বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট)। গত ১০ আগস্ট থেকে বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও রেস্তোরাঁগুলো খোলা রয়েছে।

Din Mohammed Convention Hall

এমএহক

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm