আক্রান্ত
২০৭৬৪
সুস্থ
১৬২৯১
মৃত্যু
৩০১

সাতকানিয়ায় সন্ত্রাসী হামলা ও ভাঙচুর

0

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া পৌরসভার ছমদর পাড়ায় বসতঘরে সন্ত্রাসী হামলায় ও ভিটার প্রাচীর ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত আড়াইটার সময় স্থানীয় আবু হানিফের নেতৃত্বে ভাংচুর ও হামলার এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) রেজাউল করিম বাদি হয়ে সাতকানিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল্লাহ আল জাহিদ চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন- সাতকানিয়া পৌরসভার ছমদর পাড়া ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আবু হানিফ, আবু বক্কর, মোনায়েম মুন্না চৌধুরী ও একই উপজেলার গোয়াজর পাড়া ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মো. ইমন। এছাড়া অজ্ঞতনামা আরও ১০-১২ জনকে আসামি করা হয়েছে।

থানা অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত আড়াইটার সময় আবু হানিফের নেতৃত্বে তার বড় ছেলে আবু বক্কর, মোনায়েম মুন্না চৌধুরী ও মো. ইমনসহ অঙ্গাতনামা ১০-১২ জন লোক হাতে দা লাঠি লোহার রড ও দেশিয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে রেজাউল করিমের কেনা জায়গায় প্রবেশ করে জোরপূর্বক পাকা দেওয়াল ভাংচুর করে। এতে অনুমানিক ২ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। এসময় আবু বক্কর অভিযোগকারী রেজাউল করিমকে লক্ষ্য করে ২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে।

অভিযোগ রয়েছে, মোনায়েম চৌধুরী মুন্না শিবিরের দুর্ধর্ষ ক্যাডার। তিনি গত সাতকানিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র (জামায়াতের) প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেছিলেন। এছাড়া মো. ইমনের বিরুদ্ধেও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও মাদক সেবনের অভিযোগ রয়েছে। গত কয়েক মাস আগে সাতকানিয়া পুলিশ এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে গোয়াজর পাড়া তার নিজ ঘরে অভিযান চালায়। এ সময় ইমন কৌশলে পালিয়ে যায়।

ভুক্তভোগী রেজাউল করিম চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে জানান, এসব ঘটনা মোনায়েম মুন্না চৌধুরীর নেতৃত্বে হয়েছে। আমি প্রশাসনের কাছে এর বিচার দাবি করছি।

তবে এ বিষয়ে জানতে মোনায়েম মুন্না চৌধুরীকে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে পাওয়া যায়নি।

রুবেল/এসএ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm