আক্রান্ত
২৪৩৯৮
সুস্থ
১৮৬৭৪
মৃত্যু
৩১৮

সাইলো সিবিএ নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা-হুমকি, শঙ্কায় ভোটাররা

0

চট্টগ্রাম সাইলো ঠিকাদার শ্রমিক ইউনিয়নের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনকে ঘিরে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতা ও প্রচারণা বন্ধে হুমকি, সমর্থকদের নাজেহালসহ নানা বাধা সৃষ্টির কারণে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন সভাপতি প্রার্থী মো. ইসমাইল ও তার প্যানেল সদস্যরা।

অভিযোগ রয়েছে, তফশিল ঘোষণা পর থেকে সদ্য বিদায়ী সভাপতি, এবারের সভাপতি পদপ্রার্থী ও তার প্যানেলের লোকজন নাজেহাল করছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের। এমনকী তাদের নির্বাচনী প্রচারণায়ও বাধা সৃষ্টি করছেন প্রতিপক্ষের প্রার্থীরা।

শনিবার (২১ নভেম্বর) চট্টগ্রাম সাইলো ঠিকাদার শ্রমিক ইউনিয়নের দ্বিবার্ষিক (২০২০-২০২১) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গত ২৮ অক্টোবর নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা করা হয়। নির্বাচন কমিশনার হিসেবে রয়েছেন মুন্সি মিয়া। তার সঙ্গে রয়েছেন শ্রমিক সংগঠনের উপদেষ্ট মো. আবছার। ২০০৫ সালে গঠিত এ সংগঠনের মোট সদস্য ১২৬ জন।

অভিযোগ প্রসঙ্গে সভাপতি প্রার্থী মো. ইসমাইল বলেন, তফশিল ঘোষণার পর থেকে আমার প্যানেলের লোকজনকে প্রার্থী হতে বাধা দিচ্ছে প্রতিপক্ষের লোকজন। আমার প্যানেলে মাত্র ৫ জন প্রার্থী। আর তাদের প্যানেলে ৮ জন প্রার্থী। প্রতিমুহূর্তে আমার লোকজনকে নির্বাচনের প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করে যাচ্ছেন তারা। তাই শনিবার সুষ্ঠ নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় আছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিদ্বন্দ্বী সভাপতি প্রার্থী ইকবাল হাসান বলেন, আমি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজনকে কোনো ধরনের বাধা প্রদান করছি না। আমার জনপ্রিয়তায় হিংসা করে এসব বদনাম করা হচ্ছে। আমিও চাই নির্বাচন সুষ্ঠু হোক। আশা করছি আমি বিজয়ী হবোই।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম সাইলো ঠিকাদার শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন কমিশনার মুন্সি মিয়া বলেন, গত বুধবার একটি মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সভাপতি প্রার্থী মো. ইসমাইল ও তার প্যানেলের সদস্যরা। তাদের বক্তব্যে বিষয়টি শুনে প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের এ বিষয়ে বলা হয়েছে। উভয়কে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও এ বিষয়ে বলা রয়েছে। এখনও পর্যন্ত সার্বিক পরিস্থিতি ভাল। শনিবার সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে আমরা আশাবাদী।

পতেঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জুবাইর সৈয়দ বলেন, শনিবার সাইলো নির্বাচন নিয়ে যে কোনও ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি করার সুযোগ নেই। ভোট কেন্দ্রে পুলিশ মোতায়েন থাকবে।

মুআ/এসএ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm