আক্রান্ত
১৪৪৫০
সুস্থ
২৩৩১
মৃত্যু
২৩৩

সাংবাদিককে সাংসদ মোস্তাফিজের সহকারী দিলেন প্রাণে মারার হুমকি

0

মুক্তিযুদ্ধ ও আওয়ামী লীগ নেতাদের নিয়ে বিভিন্ন সময় বিতর্কিত মন্তব্য করা বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর ব্যক্তিগত সহকারী একেএম মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে এবার এক সাংবাদিককে প্রাণে মারার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) রাতে নগরের পাঁচলাইশ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন নিউজনাউ২৪ডটকমের চট্টগ্রাম ব্যুরোর স্টাফ রিপোর্টার পার্থ প্রতীম নন্দী। জিডিটি তদন্তের জন্য পাঁচলাইশ থানার এসআই বাবু মিয়াকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

জিডি রেকর্ডের বিষয়টি চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক।

এর আগে গত ২৭ জুলাই ‘চট্টগ্রামে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়া মুক্তিযোদ্ধার দাফন, এমপি বলছেন যুদ্ধই হয়নি!’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ করে নিউজনাউ২৪ডটকম। এতে সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর বরাত দিয়ে উল্লেখ করা হয়, “চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কোন মুক্তিযুদ্ধ হয়নি।’ সাংসদ আরও বলেন, ‘বাঁশখালীতে স্বাধীনতার একদিন আগে কতগুলো রাজাকার নিয়ে গোমদন্ডীতে মারি ফেলছে।’

এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর এ বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানহানি হয়েছে দাবি করে গত ২৯ জুলাই চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে করে এমপিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধারা। সেই সঙ্গে তার অপসারণ ও শাস্তির দাবি জানান তারা। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় ও প্রধানমন্ত্রীরও দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

এর জের ধরে ৩০ জুলাই এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর ব্যক্তিগত সহকারী একেএম মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিক পার্থকে জড়িয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। ওই স্ট্যাটাসে পার্থকে গণপিটুনিতে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে জিডিতে উল্লেখ করা হয়।

জিডিতে সাংবাদিক পার্থ প্রতীম নন্দী অভিযোগ করেছেন, “একেএম মোস্তাফিজুর রহমান তার নিজের ফেসবুক আইডিতে আমার নাম উল্লেখ করে লিখেছেন- আপনারা আপনাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে সর্বশক্তি নিয়োগ করে পার্থ নামক জনৈক (তিনি যে পেশাতেই থাকুন না কেন) প্রকাশ্যে দিবালোকে সংক্ষুব্ধ বাঁশখালীবাসী গণপিটুনি দিয়ে মেরে ফেলার আগেই আপনারা সর্বশক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে এই অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্যোগ মোকাবেলায় দৃষ্টান্তমূলক অবদান রাখুন।”

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাংবাদিক পার্থ প্রতীম নন্দী বলেন, ‘গণপিটুনিতে মেরে ফেলার হুমকিতে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে আমি পাঁচলাইশ থানায় জিডি করেছি। আশা করছি, পুলিশ প্রশাসন দ্রুত যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর ব্যক্তিগত সহকারী একেএম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারবো না।’

এআরটি/এসএ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm