সমঝোতায় ক্লান্ত সিজেকেএসে ৮ বছর পর নির্বাচনের হাওয়া

প্রথম দিনেই মনোনয়নপত্র নিলেন ১৩ জন

0

চার বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয় চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার (সিজেকেএস) নির্বাচন। কিন্তু গতবার আ জ ম নাছির উদ্দিন সমঝোতার মাধ্যমে কমিটি গঠন করায় নির্বাচন হয়নি। সব ঠিকঠাক থাকলে আট বছর পর আগামী ১৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে সিজেকেএস কার্যকরী কমিটির নির্বাচন। সংস্থার গত দুবারের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন এরই মধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন এবার সমঝোতা নয়, নির্বাচনই হবে।

আ জ ম নাছির বলেন, ‘আমি চাই নির্বাচনের মাধ্যমে যার যার যোগ্যতা প্রমাণ করে জিতে আসুক। আমি আগেও বলেছি আবার এখনো বলছি, আমি কারো পক্ষে কিংবা বিপক্ষে নই। যার ইচ্ছা নির্বাচন করবে আর যার ইচ্ছা করবে না।’ তিনি সংস্থার কাউন্সিলরদের আবদার শুনতে শুনতে ক্লান্ত বলেও জানান।

এদিকে নির্বাচন কমিশন খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ, আপত্তির নিষ্পত্তি ও চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশের পর তফশিল ঘোষণা করে। সে অনুযায়ী রোববার ছিল মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের প্রথম দিন। সোমবার (২ ডিসেম্বর) শেষ হবে ফরম সংগ্রহের শেষ দিন। মনোনয়ন পত্র জমা নেওয়া হবে আগামী ৩ ও ৪ ডিসেম্বর। মনোনয়ন পত্র বাছাই করা হবে ৫ ডিসেম্বর। ৮ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হবে বৈধ মনোনয়ন পত্রের তালিকা। ৯ ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের দিন। ১০ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হবে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা।

রোববার প্রথম দিনে মনোনয়ন পত্র বিক্রি হয়েছে ১৩টি। সহ সভাপতি পদে দুটি আর নির্বাহি সদস্য পদে ১১টি মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেছেন নির্বাচন প্রত্যাশিরা। গতকাল সহ সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার বর্তমান কমিটির নির্বাহি সদস্য, সাবেক সহসভাপতি আলহাজ দিদারুল আলম চৌধুরী। সবুক্তগীন সিদ্দিকী মক্কীও এই পদে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন।

এছাড়া নির্বাহি সদস্য পদে ১১ জন মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন। তাদের মধ্যে উপজেলা কোটার দুজনও রয়েছেন। উপজেলা কোটা থেকে সীতাকুন্ড উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ ভট্টাচার্য্য এবং রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হারুন আল রশিদ মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন। যদিও এ দুজন এরই মধ্যে উপজেলা কোটা থেকে নির্বাচিত হয়ে নির্বাহী সদস্য হিসেবে নিশ্চিত হয়েছেন।

এবারের নির্বাচনের প্রথম মনোনয়ন পত্রটি কিনেছেন সদস্য পদে কল্লোল সংঘের প্রতিনিধি নাসির মিয়া। পরে নির্বাহি সদস্য পদে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন উল্লাস ক্লাবের প্রতিনিধি চন্দন ধর, প্রবীন কুমার ঘোষ, সিজেকেএস হকি সম্পাদক লুৎফুল করিম সোহেল, বর্তমান নির্বাহি কমিটির সদস্য ও মোহামেডান ক্লাবের প্রতিনিধি জহির আহমেদ চৌধুরী, ইউনাইটেড স্পোর্টিং ক্লাবের প্রতিনিধি এ এস এম সাইফুদ্দিন, কাস্টমস স্পোর্টস ক্লাবের প্রতিনিধি আবু হেনা মোস্তফা কামাল টুলু, রাইজিং স্টার ক্লাবের প্রতিনিধি ও জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ শাহজাহান এবং সিজেকেএস দাবা কমিটির সম্পাদক তনিমা পারভীন।

সোমবার আ জ ম নাছির উদ্দীনসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা মনোনয়ন পত্র কিনবেন বলে জানা গেছে। এখনো একটি পক্ষ তদবির চালাচ্ছে নির্বাচন না করে আ জ ম নাছিরের হাত ধরে সমঝোতার কমিটিতে চলে আসতে। কিন্তু আ জ ম নাছির উদ্দিনের কঠোর অবস্থানের কারণে আপাত দৃষ্টিতে তাদের আশা পূরণ হচ্ছে না বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। কিন্তু আ জ ম নাছির নিজের কথার উপর শেষ পর্যন্ত অটল থাকেন কিনা সেটিই এখন দেখার বিষয়।

তবে এবারের নির্বাচনে বেশ চমক অপেক্ষা করছে বলে জোর গুঞ্জন চলছে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন