সত্যের মুখোমুখি হয়ে বিজ্ঞান শিক্ষায় এগিয়ে যেতে হবে- আনোয়ারুল আজিম আরিফ

0

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামের (আইআইইউসি) উপাচার্য প্রফেসর আনোয়ারুল আজিম আরিফ বলেছেন, ‘সত্যের মুখোমুখি হয়ে বিজ্ঞান শিক্ষায় এগিয়ে যেতে হবে। বিজ্ঞান শিক্ষায় সমৃদ্ধ হয়ে মানবীয় গুণাবলী সম্পন্ন মানুষ তৈরি করতে হবে।’

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) কুমিরাস্থ ক্যাম্পাসে আইআইউসি’র তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ একাডেমী অব সায়েন্স ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের যৌথ আয়োজনে জাতীয় পর্যায়ের বিভাগীয় সায়েন্স অলিম্পিয়াড-২০২২ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর আনোয়ারুল আজিম আরিফ এসব কথা বলেন।

আইআইইউসি’র আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড . মো’ দেলাওয়া হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের প্রফেসর ড . মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, আইআইইউসি’র রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ শফীউর রহমান এবং ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক চট্টগ্রামের (উত্তর) জোনাল হেড মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইইউসি’র বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. আকতার সাঈদ।

বাংলাদেশ একাডেমী অব সায়েন্স ও আইআইইউসি’র পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সকাল ৯টায় দিনব্যাপী এই বর্ণাঢ্য আয়োজনের সূচনা হয়।

এরপর ছিল বিজ্ঞান অলিম্পিয়াডের সারা দেশের সময়সূচী অনুসারে সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত লিখিত পরীক্ষা এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান।

উল্লেখ্য, স্কুল ও কলেজের ৪৪৯ জন ছাত্র-ছাত্রী এই বিজ্ঞান অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইইউসি’র উপাচার্য প্রফেসর আনোয়ারুল আজিম আরিফ বলেন, ‘যুক্তিভিত্তিক জ্ঞান অর্জনের জন্য তরুণদের বিজ্ঞানমুখী হতে হবে। আগামী প্রজন্মকে আরও বিজ্ঞানমনস্ক করার জন্যে বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড একটা বিশেষ ভূমিকা রাখবে। ২০৪১ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নত দেশের পদার্পণের লক্ষ্যে এই তরুণ প্রজন্মকেই এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি বলেন৷ ‘বাংলাদেশের ছেলেমেয়েরা অত্যন্ত মেধাবী। তাদের মধ্যে আরো জ্ঞানের স্পৃহা জাগাতে হবে। আমরা প্রজন্মের পর প্রজন্মকে মানবসম্পদে রূপান্তর করতে চাই।

তিনি বিজ্ঞানের বুদ্ধির প্রতিযোগিতায় যারা বিজয়ী হয়েছেন তাদের অভিনন্দন জানান।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের প্রফেসর ড . মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘বিজ্ঞান ছাড়া কিছু ভাবা যায়না। জীবন ও জগৎ বুঝতে হলে বিজ্ঞান জানতে হবে বেশি।’

তিনি বলেন, ‘বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড হচ্ছে বুদ্ধির প্রতিযোগিতা যা বিশাল পরিসরে বড় অর্জনের সুযোগ করে দেয়। বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড থেকেই বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ বিজ্ঞানী গড়ে উঠবে।’

সভাপতির বক্তব্যে আইআইইউসি’র আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. মো. দেলাওয়া হোসেন বলেন, ‘সারাবিশ্ব যে বিজ্ঞান নিয়ে এগিয়ে চলেছে তার সাথে আমরা আছি। বিজ্ঞানের নেতিবাচক প্রয়োগ দুঃখজনক। মানুষের কল্যাণে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির আবিষ্কার এবং চর্চা হওয়া উচিত। শান্তির জন্যে বিজ্ঞানের ইতিবাচক প্রয়োগ হওয়া প্রয়োজন।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm