s alam cement
আক্রান্ত
৪৬৬৮২
সুস্থ
৩৫২১৬
মৃত্যু
৪৫২

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক কাপের প্রাইজমানি এখনো পায়নি চ্যাম্পিয়ন তেরেঙ্গানু

দু’দফা তারিখ দিলেও কথা রাখেনি চট্টগ্রাম আবাহনী

0

দেশের ঘরোয়া ক্রীড়াঙ্গনে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর পুরস্কারের অর্থ না দেয়ার দৃশ্য হারহামেশা দেখা গেলেও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শেখ কামাল ক্লাব কাপেও এই দৃশ্য দেখতে হবে সেটি নিশ্চয় আশা করেনি দেশের ক্রীড়ামোদী জনগণ। এমনিতে এক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় ফুটবল নানান বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের পর এখন অনেকটাই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে ফুটবলপ্রেমীরা। ফুটবলের এই বেহাল দশার মাঝে চট্টগ্রাম আবাহনীর আয়োজনে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে ফুটবল জাগরণের আশার কথা শুনিয়েছিলেন আয়োজকরা। মাঠে দর্শকদের উপস্থিতিতে তার কিছুটা প্রমাণও মিলে। যদিও টুর্নামেন্ট শুরুর আগে ক্যাসিনো ক্যালেঙ্কারি, সাবেক চট্টগ্রাম আবাহনী কর্মকর্তাদের সাথে বর্তমানদের দূরত্ব, শেষ মুহূর্তে ঢাকা আবাহনীর নাম প্রত্যাহার, খেলার সময়সূচি নিয়ে তালগোল অবস্থার পরও গত বছরের অক্টোবরে সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছিল টুর্নামেন্টের তৃতীয় আসরের। যেখানে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল মালয়েশিয়ার তেরেঙ্গানু এফসি।

কিন্তু ফুটবলের জন্য ক্ষতিকর, সেই সাথে চট্টগ্রাম তথা দেশের ভাবমূর্তির উপর প্রশ্ন জাগে যখন গত ফেব্রুয়ারিতে দেশের একটি গণমাধ্যমে প্রকাশ হয় চ্যাম্পিয়ন দল তেরেঙ্গানু এফসি পায়নি টুর্নামেন্টের প্রাইজমানির অর্থ। ছয় ক্লাবের আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে চ্যাম্পিয়নদের জন্য বরাদ্দ প্রাইজমানির ৫০ হাজার ইউএস ডলার (৪২ লাখ টাকা) বুঝে পায়নি মালয়েশিয়ার দলটি।

ফেব্রুয়ারিতে তেরেঙ্গানুর অর্থ পাওনার বিষয়ে সংবাদ প্রকাশের পর শেখ কামালের অর্ধকোটি টাকার পুরস্কারের পাওনা এক সপ্তাহের মধ্যে চুকিয়ে দেবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবলের প্রধান সম্বন্বয়ক ও চট্টগ্রাম আবাহনীর সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন। এরপর প্রায় তিন সপ্তাহ কেটে গেলেও এখনও অর্থ বুঝে পায়নি তেরেঙ্গানু। এমনটি জানিয়েছেন ক্লাবের ফিজিও মোহাম্মদ ফায়েজ মানজা। এমনটা কাম্য ছিল না বলে মনে করেন তিনি। এদিকে মাঝে তরফদারের নির্বাচনে সভাপতি পদে না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তে আলোচনার বাইরে চলে যায় তেরেঙ্গানুর অর্থ পাওয়ার বিষয়টি। অবশ্য নির্বাচনের সিদ্ধান্তের সঙ্গে অর্থ পাওনার বিষয়ে কোনও রকম প্রভাব পড়েনি বলে মনে করেন ক্লাব সংশ্লিষ্টরা। ইতোমধ্যে ক্লাবের কাছে মেইল পাঠানো হয়েছে বলে জানানো হয়। এবং চলতি মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে অর্থ পরিশোধ করা হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন এই সূত্র।

সাড়ে তিন মাস কেটে গেলেও প্রাইজমানি বুঝে পায়নি চ্যাম্পিয়ন তেরেঙ্গানু এফসি। ক্লাবের ফিজিও মোহাম্মদ ফায়েজ মানজা একটি অনলাইন পোর্টালকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘আমরা তাদের আমন্ত্রণে অংশ নিয়েছি কিন্তু এখনও পর্যন্ত প্রাইজমানির অর্থ বুঝে পাইনি। এটা খুবই দু:খজনক। আমরা টুর্নামেন্ট কমিটির সঙ্গে যোগাযোগ করেছি।’ এ বিষয়ে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবলের প্রধান সম্বন্বয়ক ও চট্টগ্রাম আবাহনীর সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন ওই অনলাইন পোর্টালকে বলেন, ‘আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। এ মর্মে মেইলও করেছি যতদূর জানি। এবং ১৫ তারিখের মধ্যে টাকা পরিশোধ করা হচ্ছে বলে জানি। বিষয়টা অনেকাংশে ক্লাবের মহাসচিবের (ক্রীড়া সংগঠক ও সাংসদ সামশুল হক চৌধুরী) উপর নির্ভর করছে।’

গত বছর ১৯ থেকে ৩১ অক্টোবর চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের তৃতীয় আসরটি আয়োজিত হয়েছিল। ফাইনালে আয়োজক চট্টগ্রাম আবাহনীকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তেরেঙ্গানু এফসি।

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm