শর্ত মেনে গর্ভবতী নারীরাও পাবেন করোনার টিকা, তবে সবাই নয়

0

অন্তঃসত্ত্বা ও সন্তানদের বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন— এমন নারীদের এতোদিন করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা ছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে। তবে সরকার এখন সেই অবস্থান সরে এসে বিশেষ কিছু শর্ত মেনে অন্তঃসত্ত্বা ও ও স্তন্যদানকারী নারীদেরও করোনার টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির পরামর্শ অনুযায়ী অন্তঃসত্ত্বা ও স্তন্যদানকারী নারীদেরও করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগের এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। রোববার (৮ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদফতরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিইআই) থেকে জারি করা এক নির্দেশনায় এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হল।

ওই নির্দেশনায় অন্তঃসত্ত্বা নারীদের করোনার টিকা নেওয়ার আগে করণীয় হিসেবে বলা হয়েছে, তাদের অবশ্যই সুরক্ষা প্ল্যাটফর্মে নিবন্ধন করতে হবে। টিকা নিতে হবে কেবল হাসপাতালবিশিষ্ট সরকারি টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে। পাশাপাশি টিকা নেওয়ার আগে রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের মাধ্যমে কাউন্সেলিং নিতে হবে।

এর পাশাপাশি কোন্ কোন্ ক্ষেত্রে অন্তঃসত্ত্বা নারীরাও করোনার টিকা নিতে পারবেন না— জানানো হয়েছে সেটাও। বিশেষ কয়েকটি অবস্থায় অন্তঃসত্ত্বা নারীদের কোভিড-১৯ টিকা নেওয়া যাবে না বলে উল্লেখ করা হয়েছে ওই নির্দেশনায়। এতে বলা হয়েছে, অন্তঃসত্ত্বা নারী টিকা গ্রহণের দিন অসুস্থ থাকলে তাকে টিকা দেওয়া যাবে না। অনিয়ন্ত্রিত দীর্ঘমেয়াদী কোনো রোগে আক্রান্ত এবং টিকা সংক্রান্ত অ্যালার্জির ইতিহাস থাকলে তাদেরও এই টিকা দেওয়া যাবে না।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশনায় বলা হয়, কোনো অন্তঃসত্ত্বা নারী কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার পর এইএফআই কেস হিসেবে শনাক্ত হলে তাকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া যাবে না। একইসঙ্গে সম্মতিপত্রে টিকাগ্রহীতা বা আইনানুগ অভিভাবক ও কাউন্সেলিংক চিকিৎসকের সই না থাকলেও তাকে টিকা দেওয়া যাবে না।

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের টিকা দেওয়ার আগে রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের কাউন্সেলিংয়ের সময় কী কী বিষয় অবশ্যই অবহিত করতে হবে— সে বিষয়েও নির্দেশনা দিয়েছে অধিদফতর। এতে বলা হয়, অন্তঃসত্ত্বা নারীদের গর্ভাবস্থায় কোভিড-১৯ সংক্রমণের স্বাস্থ্যঝুঁকি সম্পর্কে অবহিত করতে হবে। কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হলে নির্ধারিত সময়ের আগেই সন্তান জন্মদানের (অপরিণত নবজাতক) ঝুঁকি ও নবজাতকের বাড়তি স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হয়— একথা জানাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া ৩৫ বছরের বেশি বয়সী, উচ্চ বিএমআইসম্পন্ন, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ অন্যান্য দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্ত নারী গর্ভাবস্থায় (বিশেষ করে প্রথম ও দ্বিতীয় ট্রিমেস্টারে) কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি এবং সাধারণ নারীদের তুলনায় অন্তঃসত্ত্বা নারীদের কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হলে স্বাস্থ্যঝুঁকির আশঙ্কা অনেক বেশি— এমন তথ্যও জানাতে বলা হয়েছে।

সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির পক্ষ থেকে টিকা প্রয়োগের আগেই অন্তঃসত্ত্বা নারীদের আরও যে বিষয়ে অবহিত করতে বলা হয়েছে, সেটি হচ্ছে অন্তঃসত্ত্বা নারীরা করোনাভাইরাসের টিকা নিলে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়া ও এর ফলে সৃষ্ট জটিলতার ঝুঁকি অপেক্ষাকৃত কমে যায় এবং অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় টিকা নিলে কোভিড-১৯-এর গর্ভজনিত ঝুঁকির আশঙ্কা থাকে কম থাকে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm