লোহাগাড়ার সেই ওসি শাহজাহান ও স্ত্রী ফেরদৌসীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

0

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান ও তার স্ত্রী ফেরদৌসী আকতারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

স্বামীর অবৈধ আয়ে চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী থানার হাইলেভেল রোডের ১৪ নম্বর সড়কে গড়েছে বিলাসবহুল বাড়ি। সেইসঙ্গে করেছে অবৈধ সম্পর্দ আয়ের তথ্য গোপন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুদক।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) বিকাল ৪টার দিকে দুদক সমন্বিত কার্যালয়, চট্টগ্রাম-২ এর উপপরিচালক মো. আতিকুল আলম বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। পরে তদন্ত করতে এটি রেকর্ড হিসেবে দেখানো হয়েছে দুদক সমন্বিত কার্যালয়, চট্টগ্রাম-১ এর দপ্তরে।

মো. শাহজাহান (৫৪) বর্তমানে ইন্ডাস্ট্রিয়াল চট্টগ্রাম রিজিয়নের পরিদর্শক পদে কর্মরত রয়েছেন। তিনি কুমিল্লা জেলার লালমাই থানার কাতালিয়া গ্রামের মৃত সুলতান আহমেদের ছেলে।

দুদক জানায়, ২০১৯ সালের ১৪ মার্চ অভিযোগের পরিপ্রক্ষিতে লোহাগাড়া থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহজাহানের স্ত্রী ফেরদৌসী আকতারের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক সম্পদ বিবরণী দাখিল করে আদেশ জারির নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর ওই বছরের ২৪ মার্চ তার বিরুদ্ধে সম্পদ বিবরণী দাখিলের আদেশ পাঠানো হয়। সর্বশেষ ২৮ মার্চ তার বিরুদ্ধে সম্পদের আদেশ গ্রহণ করা হয়।

Yakub Group

দুদক আরও জানায়, অভিযুক্ত অসৎ উদ্দেশ্যে একে অপরের সহযোগিতায় ও ক্ষমতা অপব্যবহার করে দুদকের দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে ১ কোটি ৭১ লাখ ৭৩৪ টাকা সম্পদ তথ্যগোপন এবং ১ কোটি ৪৮ লাখ ৪ হাজার ৪১৩ টাকা মানিলন্ডারিং আইনে জ্ঞাত বহির্ভূত আয়ের সঙ্গে অসঙ্গতি পাওয়াসহ অবৈধ এ সম্পদ অভিযুক্তরা ভোগ দখলে রেখেছেন।

দুর্নীতি দমন কমিশন ২০০৪ এর ২৬ (২) ও ২৭ (১) ধারা মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪ (২) ও ৪ (৩) ধারা ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারাসহ দন্ডবিধি ১০৯ ধারায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের উপপরিচালক আতিকুল আলম। তিনি বলেন, ‘অবৈধ সম্পদ অর্জন ও দাখিলকৃত সম্পদের তথ্য অসঙ্গতি পাওয়ায় লোহাগাড়া থানার সাবেক ওসি শাহজাহান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মামলা দায়ের করার পর তদন্ত করতে এটি রেকর্ড দেখানো হয়েছে। তদন্তে অন্য কারও সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে।’

এমএ/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm