লুডু খেলা নিয়ে বাকবিতণ্ডায় ছুরিকাঘাতে দিনমজুর নিহত কক্সবাজারে

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের মোবাইলে লুডু খেলা নিয়ে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে আবদুল মালেক (৫০) নামের এক দিনমজুর ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন।

এ সময় তার দুই ছেলে পারভেজে (২৫), মোহাম্মদ হোসেন (১৯) ও স্ত্রী বুলবুল আক্তারকে (৪০) ছুরিকাঘাত করে গুরুতর জখম করা হয়েছে।

রোববার (২৮ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে মগনামা ইউনিয়নের বাজারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আবদুল কাদের মগনামা বাইন্যাঘোনা চল্লিশ পরিবার এলাকার মৃত ছৈয়দ আহমদের ছেলে। আহতদের স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে পেকুয়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। এদের মধ্যে নিহত হন আবদুল কাদের।

স্থানীয়রা জানান, বাজারপাড়া যাত্রী ছাউনিতে আবদুল কাদের, নুরুল আমিন, মাসুম ও আবু হেনা মোবাইলে লুডু খেলছিল। এ সময় আবদুল কাদের ও নুরুল আমিনের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে নুরুল আমিন আবদুল কাদেরকে ছুরিকাঘাত করে গুরুতর জখম করে।

Yakub Group

ঘটনাটি আবদুল কাদেরের পরিবারের কাছে জানাজানি হলে স্ত্রী ও ছেলেরা তাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসে। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে নুরুল আমিন,তার ছেলে নাঈবুসহ আরও কয়েকজন মিলে তাদেরকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে।

মগনামা বাজারপাড়া স্টেশনে প্রতিনিয়ত জুয়ার আসর বসে। গভীররাত পর্যন্ত চলে একাধিক দোকানে জুয়ার আসর। মোবাইলে জুয়া খেলায় মেতেছে স্কুল,কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরাও। এ ব্যাপারে স্থানীয়রা প্রশাসনের জোরালো হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এদিকে পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত নুরুল আমিন ও তার এক মেয়েকে রাজাখালী থেকে আটক করেছেন। আটক নুরুল আমিন বাজারপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল জাব্বারের ছেলে।

নিহতের ছেলে হোছাইন বলেন, ‘সামান্য বিষয় নিয়ে নুরুল আমিন প্রকাশ্যে আমার বাবাকে ছুরিকাঘাত করেছে। আমি পিতা হত্যার বিচার চাই।’

এ ব্যাপারে পেকুয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফরহাদ আলী বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।’

আরএম/এমএফও

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm