লিগ চলাকালীন দলবদলের ঘোষণা আত্মঘাতি: তরফদার রুহুল আমিন

0

লিগ চলাকালীন সময়ে বিশেষকরে লিগ শেষ হওয়ার আগেই দলবদলের ঘোষণা আত্মঘাতি বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তরফদার রুহুল আমিন। পাশাপাশি তিনি দ্রুত সময়ের মধ্যে অডিট রিপোর্ট প্রকাশ আর এজিএম না ডাকলে তলবি সভা ডেকে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) এর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এজন্য তিনি বাফুফেকে দুই সপ্তাহের সময়ও বেধে দেন। সোমবার (৮ জুলাই) রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনের আলোচনা ও সমন্বয় সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনের উক্ত সভায় সদস্যদের সম্মতিক্রমে অ্যাসোসিয়েশনের লগো অনুমোদন করা হয়েছে। এছাড়া সভায় সাম্প্রতিক বেশ কিছু বিষয় নিয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সিদ্ধান্তগুলো গণমাধ্যমের কাছে তুলে ধরেন সংগঠনের সভাপতি তরফদার রুহুল আমিন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের যতোগুলো ইভেন্ট আছে, ইভেন্টগুলো কার কার কাছে, কত টাকায় বিক্রি করা হয়েছে, কত দিনের জন্য করা হয়েছে তার একটা পূর্ণ হিসাব আমরা চাই। অডিট হিসাব ও এজিএম এর নির্দিষ্ট তারিখ চেয়ে বাফুফে বরাবর একটি চিঠি দিব। যদি এই সময়ের মধ্যে বাফুফে অডিট হিসাব ও এজিএম না দেয় তাহলে আমরা সমস্ত কাউন্সিলরদের নিয়ে গঠনতন্ত্র ও আইনানুগভাবে তলবি সভা করে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করব। এই সিদ্ধান্তটি বাংলাদেশ বিভাগ ও জেলা অ্যাসোসিয়েশন নিয়েছে সেটিই আমরা এখন নিয়েছি।‘

সভায় লিগে পাতানো খেলা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিভিন্ন ক্লাবের কর্মকর্তারা। তারই পরিপ্রেক্ষিতে রেফারিকে সুষ্ঠুভাবে খেলা পরিচালনারও আহ্বান জানান তরফদার রুহুল আমিন। তিনি পাতানো খেলা বন্ধের জন্য সুষ্ঠু তদন্ত এবং প্রয়োজনীয় শাস্তির ব্যবস্থার কথাও বলেন।

সুচি অনুযায়ী এবারের প্রিমিয়ার লিগ শেষ হওয়ার কথা ৩১ জুলাই। এর আগেই তড়িঘড়ি করে দলবদলের ঘোষণাকে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। তারা অভিযোগের সুরে বলেন, ‘একজন খেলোয়াড় লিগ চলাকালীন সময়ে সমস্ত মনোযোগ থাকার কথা যেই দলে খেলছেন সেই দলের প্রতি। এখন দলবদলের ঘোষণা আসায় খেলোয়াড়রা সেদিকেই মনোনিবেশ করবেন বেশি। আমরা দ্রতই একটি মিটিংয়ে বসে সিদ্ধান্ত নিব দলবদলে অংশ নিব কিনা।’

বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোমিনুল হক সাঈদ বলেন, ‘আমাদের সাথে পরামর্শ না করে, আমরা কীভাবে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করি সেগুলো বিশ্লেষণ না করে, আমাদের আর্থিক অবস্থার বিষয়টি বিশ্লেষণ না করে কীভাবে বিষয়টি চাপিয়ে দিতে পারবে? সেটি কি ফুটবলকে এগিয়ে নেয়ার জন্য নাকি ফুটবলকে হত্যা করার জন্য?

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন