s alam cement
আক্রান্ত
১০২৩১৪
সুস্থ
৮৬৮৫৬
মৃত্যু
১৩২৮

লটারির ভর্তিতে স্কুলপ্রতি আবেদন ফি ২২ টাকা, ৫ স্কুলে ১১০ টাকা

1

আসছে জানুয়ারির নতুন ২০২২ শিক্ষাবর্ষেও স্কুলে শিক্ষার্থী ভর্তি হবে লটারির মাধ্যমে— এমন সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়ে এখন ঘোষণার অপেক্ষায়। এর ফলে এবারও সারাদেশের বেসরকারি ও সরকারি স্কুলে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

আসছে শীতে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে— এমন আশঙ্কা মাথায় রেখে গত বছরের মতোই ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করা হচ্ছে।

এদিকে করোনা পরিস্থিতির কারণে নতুন বছরে স্কুল ভর্তির আবেদন ফিও কমানো হচ্ছে। সরকারি-বেসরকারি স্কুলে ভর্তির আবেদন ফি হবে ২২ টাকা। তবে একসঙ্গে পাঁচটি বিদ্যালয়ে আবেদন করতে হলে লাগবে ১১০ টাকা। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) থেকে জানা গেছে।

চলতি বছর প্রতিটি বেসরকারি স্কুলে ভর্তি ফরম ২০০ টাকা আর সরকারি স্কুলে ১৭০ টাকা ধার্য থাকলেও এবার একসঙ্গে পাঁচটি স্কুলে আবেদনের জন্য ১১০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সে হিসাবে স্কুলপ্রতি আবেদন করতে ফি দিতে হবে ২২ টাকা।

বুধবার (৩ নভেম্বর) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা কমিটির সভায় নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অনলাইনের মাধ্যমে ভর্তির আবেদন ফরম ক্রয় ও জমা দিতে হবে। লটারি কার্যক্রম পরিচালিত হবে টেলিটকের মাধ্যমে। আর ফলাফল প্রকাশ করা হবে ওয়েবসাইটে।

জানা গেছে, এরই মধ্যে আগামী শিক্ষাবর্ষের জন্য ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রস্তুতি নিচ্ছে বেসরকারি বিদ্যালয়গুলো। সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি ফরম বিতরণ হবে ডিসেম্বরের শুরুতে।

গত বছর করোনাভাইরাস মহামারির কারণে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়। এর আগে শুধু প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হতো।

দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তিতে পরীক্ষা নেওয়া হতো। নবম শ্রেণিতে ভর্তি করা হতো জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে।

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

1 মন্তব্য
  1. এম, জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন

    লটারির নামে মেধাবী ছাত্র / ছাত্রীদের জীবন ধংস করবেন না।
    প্রতিটি অভিভাবক এক বছর ধরে ছেলে-মেয়েকে গড়ে তুলেন ভালো স্কুলে ভর্তি করাবেন বলে ।
    ছেলে-মেয়েও সেভাবে প্রস্তুতি নিয়ে থাকেন। এখন হঠাৎ করে যদি লটারি দিয়ে ভর্তি করা হয় তাহলে মেধা যাচাই হবে না এবং ছেলে-মেয়ে আর অভিভাবকগণ মানসিকভাবে ভেঙ্গে পাড়বেন। আথচ এখন জীবনযাত্রা সবই স্বাভাবিক নিয়মে চলতেছে । তাহলে ভর্তি পরীক্ষা নিতে সমস্যা হওয়ার কথা নয় । আর পরীক্ষাটা রচনামূলক না নিয়ে এম সি কিউ পদ্দতিতে নেয়া যেতে পারে । এ ব্যাপারে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি ।আর অভিভাবকদের সোচ্চার হওয়ার আহবান জানাচ্ছি ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm