রাতে আটক, রাতেই বিচার— সরকারি দলের নেতা মা-ছেলের সাজা

পুলিশের দাবি, বাসায় বসতো মাদকের আসর

কক্সবাজারের উখিয়ায় আওয়ামী লীগের সাবেক নেত্রী খুরশিদা করিম এবং তার ছেলে উখিয়া শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন সুজনসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

সোমবার (২৮ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে কোটবাজার মনি মার্কেট এলাকার খুরশিদা করিমের বাসায় চলা মাদকের আড্ডায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে দাবি করেছে পুলিশ।

এ সময় কিছু মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে গেলেও পুলিশ মাদক বিক্রির বিভিন্ন সরঞ্জামসহ উখিয়ায় আওয়ামী লীগের সাবেক নেত্রী খুরশিদা করিম (৪৮), তার ছেলে গিয়াস উদ্দিন সুজন (২৮), রুমখা চরপাড়া গ্রামের আনোয়ার হোসেন (২২), ফলিয়াপাড়া গ্রামের শাহাজাহান (২৮) আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

পরে আটককৃতদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে পাঠানো হলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিকারুজ্জামান চৌধুরী আসামিদের দন্ডবিধি ১৮৬০ সালের সংশ্লিষ্ট ধারায় প্রত্যেককে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

সত্যতা নিশ্চিত করে উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল মনসুর বলেন, ‘আমাদের কাছে তথ্য ছিল আটক মাদক কারবারি খুরশিদা করিমের বাড়িতে নিয়মিত মাদকের আড্ডা বসে এবং বিভিন্ন এলাকার মাদকসেবীরা তার বাড়িতে এসে মাদক সেবন করে।’

এ ব্যাপারে থানা পুলিশের নজরদারি ছিল দাবি করে ওসি বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে উখিয়া থানা পুলিশের একটি দল খুরশিদা করিমের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মাদকের বিভিন্ন সরঞ্জামসহ খুরশিদা করিমের ছেলেসহ ৩ জনকে আটক করে নিয়ে আসার সময় খুরশিদা করিম আসামিদের নিয়ে আসতে বাধা দেন। পরে পুলিশ তাকেসহ অন্যদের গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।’

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩০ অক্টোবর কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে নভোএয়ারের যাত্রী ১ হাজার ৯২৫ পিস ইয়াবাসহ খুরশিদা করিম আটক হয়েছিলেন। বিমানবন্দরের যাত্রী ভবনে প্রবেশ করার সময় গেইটে তল্লাশিতে তার ভ্যানিটি ব্যাগে ইয়াবা ধরা পড়ে। পরে ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে ১ হাজার ৯২৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর থানায় ১৯৯০ সালের ১৯(১) এর ৯ (থ) ধারায় মামলা দায়ের করে। এই মামলায় জামিনে এসে পুনরায় ইয়াবা কারবারে জড়িয়ে পড়েন খুরশিদা করিম— এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!