রাঙ্গুনিয়ায় সাপ্তাহিক হাট বন্ধের নির্দেশ ইউএনওর, বাজার মনিটরিং করছেন ওসি

0

রাঙ্গুনিয়ায় করোনাভাইরাসের বিস্তৃতি রোধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনওর সাপ্তাহিক হাটবাজার গুলো বন্ধের নির্দেশের ১দিন পর উপজেলার বিভিন্ন বাজার মনিটরিং করতে মাঠে নেমেছে রাঙ্গুনিয়া মডেল থানা ইনচার্জ (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম।

জানা যায়, দেশজুড়ে করোনাভাইরাসের আতঙ্ককে পুঁজি করে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বিভিন্ন পাইকারি বাজারসহ পাড়া মহল্লার দোকান গুলোতে চাল, ডাল, আটা, পেঁয়াজ, আলু ও ডিমের মতো অতিপ্রয়োজনীয় প্রায় পণ্যের দাম বেড়ে চলেছে। করোনা আতঙ্কের অস্থিরতায় গত ২৪ মার্চ সকাল থেকে বাজারে ক্রেতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। লাগামহীনভাবে নিত্যপণ্য কিনে নেওয়ায় ব্যবসায়ীরা সুযোগ বুঝে প্রতিটি জিনিসপত্রের দামও বাড়িয়ে দিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় মেডিকেল পণ্য বিশেষ করে মাস্ক, স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশ, টিস্যু, প্যারাসিটামল গ্রুপের সব ধরনের ওষুধ, কাশির সিরাপ এবং ঠান্ডার সব ধরনের ওষুধের চাহিদা বেড়েছে। অনেক ফার্মেসিতে এসব ওষুধের সঙ্কট তৈরি হওয়ায় দাম বেশি নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

তবে খুচরো ব্যবসায়ীরা বলছেন, চাহিদা অনুযায়ী বাজারে পণ্যের সরবরাহ নেই। আর এ কারণে জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) বাজারে কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ানোর অভিযোগে উপজেলার রোয়াজারহাট, রাজারহাট, রানীরহাট, ধামাইরহাট, ক্ষেত্রফল বহুচক্র হাট, মোগলের হাটসহ বিভিন্ন বাজার ও উপজেলার প্রত্যন্ত পাড়া- মহল্লার দোকান গুলোতে গিয়ে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে মনিটরিং করছেন ওসি মো. সাইফুল ইসলাম।

রাঙ্গুনিয়া মডেল থানার ইনচার্জ (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, যারা এই করোনাভাইরাসের আতঙ্ককে পুঁজি করে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করবে তাদের প্রত্যেককে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। আমরা পাইকারি ও খুচরা বাজারে গুলো নিয়মিত মনিটরিংসহ কে কত টাকা নিচ্ছে তা নজরদারি করছি।’

এদিকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গত ২৫ মার্চ বুধবার থেকে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের বিস্তৃতি রোধের লক্ষ্যে রাঙ্গুনিয়ায় সাপ্তাহিক হাটগুলো পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে । এছাড়াও সভা সমাবেশ, বিবাহ, মেজবান, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে জনসমাগম নিষিদ্ধ করেন। তবে মুদি দোকান, খুচরা কাঁচাবাজার ও ওষুধের দোকান এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাসুদুর রহমান বলেন, ‘জেলা প্রশাসকের নির্দেশ অনুযায়ী হাটবাজার ও পশুর হাট (দৈনন্দিন বাজার ছাড়া) বন্ধ রাখার জন্য এ আদেশ দেওয়া হয়। এ ছাড়া দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে বাজার মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি সড়ক ও চট্টগ্রাম কাপ্তাই সড়কে যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ ছিল। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গুটিকয়েক খাদ্য ও ঔষুধের দোকান ছাড়া হাটবাজার মহাসড়ক, ডিসি সড়কসহ আন্তঃসড়কগুলো ফাঁকা থাকতে দেখা যায়।

এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন