রাঙামাটিতে অস্ত্রের মুখে ইউপি সদস্যকে অপহরণ

0

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে বাড়ির দরজা ভেঙ্গে অস্ত্রের মুখে মংচিং মারমা নামের এক ইউপি সদস্যকে অপহরণ করা হয়েছে। স্বজনদের দাবি, অপহরণকারীরা পাহাড়ের আঞ্চলিকদলের সন্ত্রাসী। মংচিং রাইখালী ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১১টায় রাইখালীর কারিগরপাড়া এলাকায় তার নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চন্দ্রঘোনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফ উদ্দিন। তিনি বলেন, ‌‘ইউপি সদস্য মংচিং নিখোঁজের বিষয়টি শুনেছি। খোঁজখবর নিচ্ছি। এখনও কেউ অভিযোগ করেনি।’

মংচিং মারমার স্ত্রী বলেন, ‘মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে জলপাই রংয়ের পোশাক পরিহিত তিনজন অস্ত্রধারী তার ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে। এরপর অস্ত্রের মুখে তার স্বামী মংচিং মারমারকে তুলে নিয়ে কারিগরপাড়া রাইখালী পুনর্বাসনের দিকে নিয়ে যায়। ওই দলটিতে ২০-২৫ জন ছিল। ঘটনার পর চন্দ্রঘোনা থানাকে খবর দিলে পুলিশ রাতে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিরাপত্তা জোরদার করে। তবে অপহরণকারীরা কোন দলের তা জানাতে পারেন নি তিনি।’

রাইখালী ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. এনামুল হক বলেন, ‘রাতে মেম্বারের স্ত্রী ঘটনাটি আমাকে অবগত করেন। সকালে আমি ঘটনাস্থলে গেছি। মংচিং মারমাকে কারা অপহরণ করে নিয়ে গেছে বলতে পারছি না।’

উল্লেখ্য, গত ৮ জানুয়ারি দুপুর আড়াইটার দিকে রাইখালী ইউনিয়নের দেবতাছড়িতে বাচিমং মারমা নামের এক যুবককে গুলি করে হত্যা করেছে অস্ত্রধারীরা। বাচিংমং ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক ছিলেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হন স্থানীয় গ্রাম প্রধান ক্যাচিং মং মারমা।

এএইচ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন