s alam cement
আক্রান্ত
৪৫৭০৮
সুস্থ
৩৪৯৫২
মৃত্যু
৪৩৭

যেভাবে খুন হলেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান

0

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার কেওচিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হক মিয়া (৮৮) হত্যার রহস্য উম্মোচন হয়েছে। নিহত আব্দুল হক মিয়ার গৃহকর্মী জমির উদ্দিন হত্যার কথা স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সোমবার (১ মার্চ) সকালে নিজ বাড়ির শয়নকক্ষ থেকে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার কেওচিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হক মিয়ার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরে নিহত আব্দুল হক মিয়ার ছেলে মইন উদ্দিন সাতকানিয়া থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এরপর সন্দেহজনকভাবে গৃহকর্মী জমির উদ্দিন আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, বেতন বাড়ানোর কথা বললেই রাগারাগি, গালমন্দ করতেন আব্দুল হক মিয়া। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় লোহার রড দিয়ে সজোরে আঘাত করার পর, মুখে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন জমির। তাতেও মৃত্যু নিশ্চিত না হওয়ায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে খুন করা হয় আব্দুল হক মিয়াকে।

তার স্বীকারোক্তিতে বাড়ির পেছনের পুকুরে দীর্ঘ ৪ ঘণ্টা সেচ দিয়ে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত লোহার রড ও তিনটি মোবাইল ফোনসেট উদ্ধার করা হয় বলে জানান সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু।

পুলিশ জানায়, রোববার রাতে আব্দুল হক মিয়া আত্মীয়দের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলে রাত দেড়টার দিকে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোর আনুমানিক ৫টার দিকে খুন্তি দিয়ে মাথায় সজোরে আঘাত করলে আব্দুল হক মিয়া চিৎকার দিয়ে উঠেন। এরপর ধস্তাধস্তি করে মুখে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হলে পরক্ষণে ঘর থেকে বেরিয়ে নিজের ঘর থেকে ধারালো ছুরি এনে তা দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে আব্দুল হক মিয়ার মৃত্যু নিশ্চিত করেন জমির। এরপর ঘটনা থেকে নিজেকে আড়াল করতে ডাকাতির ঘটনা সাজাতে বাড়ির মালামাল তছনছ করেন জমির। পরে আব্দুল হক মিয়ার ব্যবহৃত একটি এবং জমিরের দুটি মিলিয়ে মোট তিনটি মোবাইল ফোন বাড়ির পেছনের পুকুরে ফেলে দিয়ে ঘরে ফিরে এসে কাপড় দিয়ে নিজেই নিজের পা, চোখ বাঁধলেও হাত বাঁধার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে লাশের পাশেই শুয়ে থাকেন জমির।

Din Mohammed Convention Hall

সকালে কাজের বুয়া এসে সামনের দরজা খোলা না পেয়ে পেছনের খোলা দরজা দিয়ে ভেতরে ঢুকে খাটের ওপর আব্দুল হক মিয়ার লাশ ও পাশেই জমিরকে পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে যান।

সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু বলেন, গৃহকর্মী জমির পুলিশকে ভিন্ন ভিন্ন তথ্য দিয়ে নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছে। কিন্তু একপর্যায়ে সে খুনের ঘটনা বিস্তারিত বর্ণনা করে। তার দেওয়া তথ্য যাচাই বাচাই করে দেখা হচ্ছে। এ হত্যাকাণ্ড আরও কেউ জড়িত আছে কি না, তা দ্রুততম সময়ের মধ্যে জানা যাবে।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, আব্দুল হক মিয়ার ঘরের কর্মচারী জমির এ ঘটনায় শতভাগ জড়িত। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আব্দুল মিয়ার বাড়ির পুকুর সেচ করে তিনটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

এসএ

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm