যুবলীগ নেতা হত্যার ঘটনায় আরও ২ আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

0

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক হত্যা মামলার দুই আসামি নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ভোরে হ্নীলার জাদিরমুড়া এলাকায় সংঘটিত ওই ঘটনায় উদ্ধার করা হয়েছে একটি দেশী বন্দুক, ৭ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও ৯ রাউন্ড কার্তুজের খোসা। ওমর ফারুক হত্যামামলায় এ নিয়ে মোট পাঁচ আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারা গেছেন। এদের সবাই রোহিঙ্গা।

‘বন্দুকযুদ্ধে’ মৃতরা হলেন, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের আকিয়াব জেলার মংডু থানার বুছিডংয়ের জমির আহমদের ছেলে আব্দুল করিম (২৪) এবং সৈয়দ হোসেনের ছেলে নেছার আহমদ প্রকাশ ওরফে নেছার ডাকাত (২৭)। এই রোহিঙ্গা দুজনই টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরে বসবাস করতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনায় আহত অবস্থায় তাদের প্রথমে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় পরে তাদের নিয়ে যাওয়া হয় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশ দুটি হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

এই ঘটনায় ‘আহত’ হয়েছেন ৩ পুলিশ সদস্যও। তারা হলেন কাজী সাইফ উদ্দিন, নাবিল ও রবিউল ইসলাম।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভোররাতে টেকনাফের একদল পুলিশ জাদিরমুড়া এলাকায় অভিযানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। পুলিশও প্রায় ২৫ রাউন্ডের মতো পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুই রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয়।’

উল্লেখ্য, গত ২২ আগস্ট রাতে কক্সবাজারের টেকনাফের হ্নীলা ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ওমর ফারুককে (৩০) নিজ বাড়ির সামনে থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে রোহিঙ্গা দুর্বৃত্তরা। নিহত ওমর ফারুক উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা এলাকার মোনাফ কোম্পানির ছেলে। তিনি ওমর জাদিমোরা এমআর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার সেলিমের নেতৃত্বে একদল অস্ত্রধারী ফারুককে নিজ বাড়ির সামনে থেকে তুলে নিয়ে পাহাড়ের পাশে নিয়ে যায়। পরে সেখানে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। খবর পেয়ে নিহতের ভাই আমির হামজা ও উসমানসহ স্বজনরা লাশ আনতে গেলে ডাকাতদল লাশ আনতে বাধা দেয়।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন