s alam cement
আক্রান্ত
২৫৫৯৪
সুস্থ
২২৭২৭
মৃত্যু
৩২০

যুবলীগ নেতা একরামের মুক্তির দাবি ছাত্রলীগ নেতাদের

0

রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় সাজানো ও মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার চট্টগ্রাম নগর যুবলীগের সদস্য ও চকবাজার ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মো. একরাম হোসেনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ফারুক ইসলাম সাক্ষরিত এক বিবৃতিতে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, একরাম হোসেন একসময় তুখোড় ছাত্রনেতা ছিলেন। তিনি ছাত্রলীগের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বও পালন করেন। স্বৈরাচার এরশাদবিরোধী ও অসহযোগ আন্দোলনে রাজপথে সরব উপস্থিতি ছিল তার। কয়েক দফা শিবিরের ভয়াবহ হামলার শিকার হয়েছেন একরাম। এছাড়া তিনি রাজনৈতিক মামলায় দীর্ঘদিন কারাগারেও ছিলেন।

চকবাজার এলাকার ঐতিহ্যবাহী এই পরিবারকে রাজনৈতিকভাবে ঘায়েল করতেই নারী নির্যাতনের মিথ্যা মামলার জাল বুনে একটি চক্র। আমরা এহেন ঘৃণ্য কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। মামলার এজাহারে বাদি উল্লেখ করেন চলতি বছর ১৪ ফেব্রুয়ারির ঘটনা। অথচ ১২ থেকে ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত একরাম হোসেন চট্টগ্রামেই ছিলেন না। ওই সময় তিনি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের কাজে ঢাকায় ছিলেন। যার উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ আছে। অথচ আদালতে দায়ের করা মামলাটির বিষয়ে যুবলীগ নেতা একবার অবগত ছিলেন না। এতে স্পষ্ট বুঝা যায় তিনি গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, বর্তমানে একরাম হোসেনের ছোট ভাই দেলোয়ার হোসেন ফরহাদ চকবাজার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাদের পারিবারিক ও রাজনৈতিক জনপ্রিয়তায় ভীত একটি মহল সম্মানহানির উদ্দেশ্যে এমন জঘন্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। অবিলম্বে যুবলীগ নেতা একরাম হোসেনকে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি। আমরা আশাকরি আদালত সত্য বিবেচনাপূর্বক মিথ্যা মামলা থেকে যুবলীগ নেতা একরাম হোসেনকে মুক্তি দিবেন।

বিবৃতি দাতারা হলেন ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ফরমান আহমদ জনি, শুভ দাশ, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল হক, নগর ছাত্রলীগ নেতা মোক্তার হোসেন রাজু, আতিকুল হাকিম, দীপু বড়ুয়া, গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, ওমর ফারুক রুবেল, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল হাসান।

উল্লেখ্য, একরাম হোসেনের বাবা মরহুম ডা. মোশাররফ হোসেন ছিলেন জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে চকবাজার আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। এছাড়াও তার বড় ভাই শহীদ ইউসুফকে ইসলামী ছাত্রশিবিরের সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে হত্যা করেছিল। সেসময় তাদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে চট্টগ্রামের কাপাসগোলাস্থ বাসভবনে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপর ভাই জাকির হোসেন নগর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। একরাম হোসেনের ছোট ভাই মো. দেলোয়ার হোসেন ফরহাদ নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য। তিনি চকবাজার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে লড়ছেন।

এএইচ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন

ম্যাজিস্ট্রেট আসার খবর পেয়ে দরজা লাগিয়ে পালিয়ে যায় কিছু কোচিং সেন্টার

চকবাজারে লুকিয়ে চলছিল কোচিং ক্লাশ, ওরাকল ও বিসিএস হেল্পলাইন বন্ধ

ksrm