ম্যাগনেট পিলারের লোভে চট্টগ্রামের যুবক কুড়িগ্রামে গিয়ে প্রতারিত, মামলা থানায়

সীমানা ম্যাগনেট পিলারের লোভে পড়ে চট্টগ্রামের এক যুবক প্রতারিত হয়েছেন কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে। এ ঘটনায় খেলনা পিস্তলসহ বেলি বেগম (৩৫) নামে এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার (২৭ নভেম্বর) ওই নারীকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

প্রতারণার শিকার আলী আশরাফ চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার নন্দীগ্রাম এলাকার আবুল খায়েরের ছেলে। অন্যদিকে প্রতারণার ঘটনায় আটক নারী বেলি বেগম কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটার সতিপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটা থানার সতিপুর এলাকার আপেল নামে এক ব্যক্তি চট্টগ্রামের একটি গার্মেন্টে চাকরির সুবাদে ওই এলাকার আলী আশরাফের সঙ্গে পরিচয় হয়। পরে বাড়িতে এসে আপেল তার মোবাইল ফোনে আলী আশরাফকে জানান, তার মামির কাছে মূল্যবান ম্যাগনেট সীমানা পিলার রয়েছে। এই লোভ দেখিয়ে আলী আশরাফকে কুড়িগ্রাম ডেকে নিয়ে আসেন।

কালো টেপ দিয়ে মোড়ানো সিমেন্টের একটি নকল সীমানা পিলার দেখিয়ে টাকা দাবি করেন আপেল ও তার পাতানো মামী বেলি বেগমসহ ৩-৪ জন। টাকা দিতে না পারায় আলী আশরাফকে হত্যা করা হবে বলেও ভয় দেখান তারা। একপর্যায়ে ওই নারী ও তার সঙ্গীরা আলী আশরাফকে ঘরে রেখে দরজা বন্ধ করে দেন। ভুক্তভোগী আলী আশরাফ জীবন বাঁচাতে ঘরের দরজা ভেঙে দৌড়ে গিয়ে বাড়ির পাশে ধানক্ষেতে লুকিয়ে পড়েন।

সন্দেহজনক গতিবিধি দেখে স্থানীয় লোকজন আশরাফকে আটক করলে বিস্তারিত জানান তিনি। পরে খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

চট্টগ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী আলী আশরাফ বলেন, ‘ম্যাগনেট সীমানা পিলারের লোভ দেখিয়ে শনিবার (২৬ নভেম্বর) আমাকে ডেকে আনেন আপেল ও তার মামী। ওই রাতে আমাকে একটি বাড়িতে নিয়ে ভুয়া সীমানা পিলার দেখান এবং টাকা দাবি করেন তারা। আমি টাকা দিতে না পারায় আমাকে নির্যাতন শুরু করেন এবং হত্যার হুমকি দেন। কোনো রকমে পালিয়ে জীবন বাঁচিয়েছি। পরে থানায় এসে তাদের নামে মামলা করেছি।’

Yakub Group

কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মর্তুজা বলেন, প্রতারণায় ব্যবহৃত সিমেন্টের তৈরি ভুয়া সীমানা পিলার, খেলনা পিস্তল ও ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতারণার অভিযোগে এক নারীকে আটক করা হয়েছে। বাকিদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm