মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ-দুধ-কোমলপানীয়— ৯ প্রতিষ্ঠানের জরিমানা, বেকারি সিলগালা

0

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়ের পৃথক পৃথক অভিযানে নগরীর ইপিজেড, বন্দর ও খুলশী থানার বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন অনিয়মের কারণে ৯ প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশপাশি একটি বেকারি সিলগালাও করা হয়েছে। অভিযানে ছাপা সংবাদপত্র ব্যবহার করে প্রস্তুতকৃত কেক, অননুমোদিত রং, ফ্লেভার, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ, প্যাকেটজাত দুধ, কোমলপানীয় ও খাদ্যদ্রব্য ধ্বংস করা হয়।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) সকাল থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সহকারী পরিচালক নাসরিন আক্তার, সহকারী পরিচালক (মেট্রো) বিকাশ চন্দ্র দাস এবং চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান। অভিযানে সহযোগিতা করেন এপিবিএন-৯ এর সদস্যরা।

ইপিজেড থানার কলসীদীঘি রোডের মালাই ফুডকে পণ্যের মোড়কে যথাযথ তথ্য না দেয়ায় এবং মেয়াদোত্তীর্ণ কোমলপানীয় বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষণ করায় ১০ হাজার টাকা, বাদামতলা এলাকার শুভ মেডিকেল হলকে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষণ করায় ৫ হাজার টাকা, আল্লাহর দান ভাতঘরকে ছাপা সংবাদপত্রে খাবার সংরক্ষণ করায় ৩ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়।

Expedition-2

ছাপা সংবাদপত্রে কেক তৈরি, নোংরা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ এবং অননুমোদিত ফ্লেভার ব্যবহারের জন্য বন্দর থানা এলাকার মিতালী বেকারিকে ৫০ হাজার টাকা, তাদের ৮০ কেজি কেক ধ্বংস করে দেয়া হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য সংরক্ষণের জন্য লালাখান বাজারের বাঘঘোনা এলাকার শামীম এন্ড ব্রাদার্সকে ৫ হাজার টাকা এবং হক স্টোরকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে মেয়াদোত্তীর্ণ প্যাকেটজাত দুধ ও খাদ্যদ্রব্য ধ্বংস করা হয়।

নগরীর বন্দর ও খুলশী থানায় পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের ক্রয় ভাউচার ও মূল্যতালিকা তদারকি করা হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সংরক্ষণ করায় চাঁনমারি রোডের সিকদার ফার্মেসিকে ৮ হাজার টাকা ও প্রকাশ ফার্মেসিকে একই অপরাধে সমপরিমাণ জরিমানা করে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হয়। আজিজ স্টোরকে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও অননুমোদিত রং বিক্রয় করায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়।

কেক প্রস্তুতে ছাপা সংবাদপত্র, অননুমোদিত রং, ফ্লেভার ব্যবহার, মোড়কে যথাযথ তথ্য না দেয়াসহ বিভিন্ন অনিয়মের কারণে বন্দর থানার ওয়াশিল চৌধুরী পাড়ার নয়ন বেকারিকে সিলগালা করে সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নয়ন বেকারি কর্তৃপক্ষকে এর আগেও একই অপরাধে সতর্ক করা হয়েছিল।

এফএম

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন