মেয়ের টোপ ছুঁড়ে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীকে ফাঁদে ফেলতে গিয়ে তিনজন ধরা

নারীর ফাঁদে ফেলে আটকে রেখে চট্টগ্রামের এক ব্যবসায়ীর কাছে থেকে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারদের মধ্যে মূলহোতা সেই নারী ও তার সহযোগী দুই পুরুষ রয়েছে।

গ্রেপ্তাররা হলেন চট্টগ্রাম নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানার হাজীপাড়া জসিমের কলোনির মো. ইদ্রিসের মেয়ে নাছমিন আক্তার পাখি (২২), একই থানার ওয়াজেদিয়া, আমির হামজার বাড়ির ইয়াসিনের ছেলে মো. ইমন (২২) ও পাঁচলাইশ থানার আতুরারডিপো সঙ্গীত সিনেমা হলের সামনে আয়েশা কলোনির মো. নুর আলমের ছেলে মো. হৃদয় (২৩)।

থানার সূত্রে জানা গেছে, ভিকটিম ইকবাল হোসেনের (৬১) সঙ্গে পরিচয় হয় আসামি নাছমিন আক্তার পাখির। এরপর তাদের মধ্যে মোবাইল ফোনে কথা হতো। তারা ২২ ফেব্রুয়ারি দেখা করার সিদ্ধান্ত নেয়। দেখা করার পর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে ইকবালকে কৌশলে বায়েজিদ বোস্তামী থানার আমিন জুট মিলসের উত্তর গেটের ফ্যাক্টরির পেছনে নিয়ে যায় নাছমিন। সেখানে আসামি ইমন ও হৃদয়সহ আরও তিনজন আগে থেকে প্রস্তুত ছিল। এরপর তারা ইকবালকে আটকে রেখে ৬০ হাজার টাকা মুক্তিপণ নেয়। একইসঙ্গে তার ব্যবহৃত দুটি মোবাইল ফোনও নিয়ে নেয়।

ভিকটিম ইকবাল হোসেন শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বায়েজিদ বোস্তামী থানায় অভিযোগ জানালে ওই রাতেই বোস্তামী থানার আমিন জুট মিলস উত্তর গেটের এশিয়াটিক কর্টন মিলের ভেতর উত্তরের পাশের খালি জায়গা থেকে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ভিকটিমের দুটি মোবাইল ফোন, নগদ ৫ হাজার টাকা ও একটি কিরিচ উদ্ধার করা হয়।

বায়েজিদ বোস্তামী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সঞ্জয় কুমার সিনহা বলেন, ভিকটিমের অভিযোগের ভিত্তিতে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পলাতক আরও তিন আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

আরএ/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!