মুমিনুলের পর সেঞ্চুরির দেখা পেলেন শান্ত, ৫০০ তুলে ইনিংস ঘোষণা

0

মুমিনুলের ব্যাট থেকে ২৬৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংস আসার পর শতক তুলে নেন নাজমুল হোসেন শান্ত। আর তাতে করে ভারতে ডক্টর ক্যাপ্টেন কে থিমাপ্পাইয়া সর্বভারতীয় স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের বিপক্ষে ৭ উইকেটে ৫০০ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেছে বিসিবি একাদশ। বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন দিন শেষ করেছে ১ উইকেটে ১১৪ রান করে।

বুধবার বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন বিপক্ষে প্রথম দিনটা দারুণ কেটেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) একাদশের। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনও খারাপ কাটেনি। ‘মিনি রঞ্জি’ খ্যাত ডক্টর ক্যাপ্টেন কে থিমাপ্পাইয়া সর্বভারতীয় স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন বিপক্ষে বিসিবি ইনিংস ঘোষণা করেছে ৭ উইকেটে ৫০০ রান তুলে।

প্রথম দিনে মুমিনুল হকের ১৫৭ রানের ইনিংসে ভর করে ২ উইকেটে ৩০৩ রান করে বিসিবি একাদশ। তবে দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে সেঞ্চুরিকে ডাবল সেঞ্চুরিতে রুপান্তরিত করার আগেই আউট হয়ে যান মুমিনুল। ২২ চার ও ১ ছয়ে ১৬৯ রান করে দারশান নানকান্দের বলে বিদায় নেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক। তিনি আউট হওয়ার পর ৩৫৪ রানের মধ্যেই ইয়াসির আলি ও নুরুল হাসান সোহানকে হারায় বিসিবি একাদশ। ফলে শঙ্কা জাগে ব্যাটিং বিপর্যয়ের।

বিপদের এই শঙ্কা কাটিয়ে নিজেদের মধ্যে দারুণ এক জুটি গড়ে ফেলেন শান্ত এবং আরিফুল হক। ধীরে সুস্থে খেলে দলকে ৪৫০ রান পার করান এ দু’জন। এর মাঝে নিজের ব্যক্তিগত সেঞ্চুরি তুলে নেন শান্ত। কিন্তু সেঞ্চুরিকে খুব বেশি বড় করতে পারেননি তিনি। দলীয় ৪৮০ রানে ব্যক্তিগত ১১৮ রান করে আউট হন এই ব্যাটসম্যান। ফলে ভাঙে ১২৬ রানে জুটি।

এরপর খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি আরিফুল হকও। দলীয় ৪৯৮ রানে সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন তিনি। ৫ চার ও সমান ছয়ে ৭৭ রান করেন তিনি। দলীয় সংগ্রহ ৫০০ রানে পৌঁছালেই ইনিংস ঘোষণার ইশারা দেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। নাঈম হাসান ১ রান ও তাইজুল ইসলাম ২ রানে অপরাজিত থাকেন।

বড় এই সংগ্রহের জবাব ব্যাটিংয়ে নেমে খুব ভালোভাবেই দিতে থাকে ভিদারবা। উদ্বোধনী জুটিতে দলকে দারুণ শুরু এনে দেন দুই ওপেনার সঞ্জয় এবং অক্ষয় কোলহার। উইকেট না হারিয়ে নিজেদের মধ্যে শতরানের জুটি গড়ে ফেলেন তারা।

মনে হচ্ছিল এভাবেই দিনটা পার করে দেবেন এই দুই ব্যাটসম্যান। তবে দিনের অন্তিম মুহূর্তে এসে সঞ্জয়কে স্ট্যাম্পিংয়ে ফাঁদে ফেলেন তাইজুল ইসলাম। ফলে ভাঙে ১১৪ রানের জুটি। শেষ ওভারে আর কোনো রান না হওয়া ওই রানেই শেষ হয় খেলা। শূন্য রানে আথার্ভা দেশপান্ডে এবং ৬২ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন অক্ষয়। ৩৮৬ রানে এগিয়ে থেকে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবে বিসিবি একাদশ।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের ভবিষ্যৎ তারকারা উঠে আসে এই টুর্নামেন্ট থেকে। এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী দলগুলো থেকে সেরা খেলোয়াড়েরাই মূল রঞ্জি ট্রফিতে খেলার সুযোগ পায় বলে এই টুর্নামেন্টের নাম দেওয়া হয়েছে ‘মিনি রঞ্জি’। প্রথমবারের মতো এই টুর্নামেন্টে খেলার জন্য একমাত্র বিদেশি দল হিসেবে আমন্ত্রণ পেয়েছে বিসিবি একাদশ। ১৬টি দল চারটি জোনে বিভক্ত হয়ে খেলবে এই টুর্নামেন্ট। প্রতি জোন থেকে শীর্ষ দল উঠবে সেমিফাইনালে। বিসিবি একাদশ পড়েছে ‘বি’ জোনে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন