আওয়ামী লীগ নেতার হাত-পা ভেঙে দিল যুবলীগের সন্ত্রাসীরা

মিরসরাই

0

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে এবার যুবলীগ নেতা মো. শাহীনের বর্বর নির্যাতনের শিকার হলেন আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। যুবলীগ নেতা ভেঙ্গে দিয়েছেন ওই আওয়ামী লীগ নেতার দুই পা ও এক হাত। ডান পা কয়েক টুকরো হওয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন বলে আশংকা করছেন চিকিৎসকরা। সারা শরীরে রড দিয়ে পেটানোর জখম নিয়ে অসহ্য যন্ত্রণায় হাসপাতালের শয্যায় শুয়ে কাতরাচ্ছেন তিনি।

অমানুষিক নির্যাতনের শিকার জাহাঙ্গীর এখন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ৭৯ নম্বর অর্থোপেডিক ওয়ার্ডের ৪০ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত বুধবার দুপুরে মুহুরী প্রজেক্ট থেকে মাছ বিক্রির টাকা নিয়ে ব্যাংকে যাওয়ার পথে মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ টেক্সটাইল কলেজ গেইটের সামনে যুবলীগ নেতা শাহীনের নেতৃত্বে ৭-৮ জন সন্ত্রাসী নির্যাতন করে টাকা ছিনতাই করে পালিয়ে যায়।

অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা শাহীন চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার ৫ নম্বর ওচমানপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। আর নির্যাতনের শিকার আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী ওচমানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি।

বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থোপেডিক্স ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায, গুরুতর অসুস্থ জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর দুই পা ও এক হাতে প্লাস্টার করা। পা দুটি বেডের সঙ্গে সোজা করে বেধে রাখা হয়েছে। হাতটি গলার সঙ্গে বাঁধা। তার বুকে, পিঠে ও শরীরের বিভিন্ন অংশে রড দিয়ে মারধরের আঘাত রয়েছে। শরীরের কয়েক স্থানে জখম রয়েছে। ফুলে রয়েছে ডান হাতটিও। একটু নড়াচড়া করতে গেলেই কাতরে উঠছেন তিনি।

ডান পা কয়েক টুকরো হওয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন বলে আশংকা করছেন চিকিৎসকরা।
ডান পা কয়েক টুকরো হওয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন বলে আশংকা করছেন চিকিৎসকরা।

এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘বুধবার সকালে মুহুরী প্রজেক্টের মাছের ঘের থেকে মাছ বিক্রি করে জোরারগঞ্জে ব্যাংকে টাকা জমা রাখতে যাচ্ছিলাম। পথেই জোরারগঞ্জ টেক্সটাইল গেইট এলাকায় আমার ভাড়া করা সিএনজি আটকে আমাকে টানতে টানতে রাস্তায় নামিয়ে আনেন যুবলীগ নেতা শাহীন। পকেট থেকে এক লাখ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় তারা। তার সঙ্গে থাকা অন্য সন্ত্রাসীরা রড দিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকেন। একপর্যায়ে নির্যাতনের শিকার হয়ে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি।’

তিনি বলেন, ‘পরে স্থানীয় মানুষজন আমাকে মিরসরাই উপজেলা হাসপাতালে পাঠান। সেখান থেকে চিকিৎসকরা আমাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। আমার পুরো শরীরেই এখন যন্ত্রণা আর যন্ত্রণা। আমাকে তারা পঙ্গু করে দিয়েছে। আমি এ বর্বর নির্যাতনের বিচার চাই।’

আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীরকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মিরসরাই জোরারগঞ্জ থানায় যুবলীগ নেতা মো. শাহীনকে প্রধান আসামি করে সাত জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে পুলিশ এখনও কোন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করতে পারেননি।

চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মশিউদ্দৌলা রেজা বলেন, ‌‘পুলিশের চোখে অপরাধীর কোন অন্য পরিচয় নেই। কেউ অপরাধ করে থাকলে তাকে আইন অনুযায়ী শাস্তি ভোগ করতে হবে। আসামি যেই হউক তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জোরারগঞ্জ থানার এসআই মো. আলমগীর বলেন, ‘বুধবার রাত থেকে আসামি শাহীনকে গ্রেফতারে একাধিক স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। আসামিরা আত্মগোপন করেছেন। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থপেডিক্স ওয়ার্ডের রেজিস্টার ডা. মো. কামাল উদ্দিন বলেন, ‘ওয়ার্ডে ভর্তি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর দুই পা ও এক হাত ভেঙ্গে গেছে। তার এক পায়ের অবস্থা খুবই খারাপ। ডান পাটি যদি ভাল না হয়, তাহলে তিনি পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন।’

Loading...
আরও পড়ুন