মিরসরাইয়ে বিজয় মেলা কমিটির সদস্যদের গুলি, ৪ আসামি গ্রেপ্তার

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা কমিটির সদস্যদের ওপর গুলির ঘটনায় ৪ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) র‌্যাব-৭ এর পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

আটকৃত আসামিরা হলেন জোরারগঞ্জ থানার সোনাপাহাড় এলাকার মোস্তফা মাষ্টারের ছেলে আল মামুন (২২), মনির আহম্মদের ছেলে মাইন উদ্দিন (২৫), আর্মি কামালারে ছেলে মো. জুয়েল, মৃত মহিউদ্দিনের ছেলে জামাল উদ্দিন (২৫)।

র‌্যাব-৭ জানায়, গত ২২ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী জোরারগঞ্জ থানাধীন জোরারগঞ্জ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে প্রতিবছরের ন্যায় মুক্তিযুদ্ধ বিজয় মেলার আয়োজন করা হয়। বিজয় মেলায় আগত বিভিন্ন দোকান হতে বিভিন্ন সময় স্থানীয় অস্ত্রধারী চাঁদাবাজ মাঈন উদ্দিন টিটু (৪২) চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। বিজয় মেলা পরিষদ দোকানদারদের চাঁদা দিতে নিষেধ করলে মাঈন উদ্দিন বিভিন্ন সময় মেলায় এসে আয়োজক কমিটির সদস্যদেরকে হুমকি প্রদান করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১ জানুয়ারি ভোর আনুমানিক সাড়ে ৪টায় মেলার শৃঙ্খলা কমিটির সদস্যরা মেলা শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে জোরারগঞ্জ বাজারে পৌঁছালে মাঈন উদ্দিন টিটুর নেতৃত্বে ২৫ থেকে ৩০ জনের অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাদের ওপর আক্রমণ করে।

এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ি গুলিতে মেলার শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য কাউছার আহম্মদ, ইমতিয়াজ উদ্দিন (২০), মিরাজ আকবর শাকিব (১৯), সাইফুদ্দিন রিফাত (১৮), তারেক হাসান (২৫) সরোয়ার হোসেন (১৮) গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন।

Yakub Group

এছাড়া সন্ত্রাসীরা জোরারগঞ্জ স্কুল মাঠে মেলার শৃঙ্খলা কমিটির আরও কয়েকজন সদস্যকে রামদা, কিরিচ, হকিস্টিক ইত্যাদি অস্ত্র দ্বারা এলোপাতাড়ি আঘাত করে গুরুতর আহত করে, কয়েকটি মোটরসাইকেল ও মেলার স্টল ভাঙচুর করে। পরবর্তীতে আহত ব্যক্তিদের চিৎকারে মেলায় উপস্থিত লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা অস্ত্র উঁচিয়ে ফাঁকা গুলি করতে করতে চলে যায়।

এ ঘটনার প্রেক্ষিত মেলার শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য কাউছার আহাম্মদ আরিফ গত ৪ জানুয়ারি জোরারগঞ্জ থানায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা আরও ১০ থেকে ১২ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পরে র‌্যাব বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেপ্তার করে।

এ বিষয়ে র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক মো. নুরুল আফছার বলেন, ‘আটকের পর তাদের জোরারগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে আসামিরা।’

জোরারগঞ্জ থানার উিউটি অফিসার এসআই আবুল খায়ের বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালে র‌্যাব চার আসামিকে থানায় হস্তান্তর করলে একইদিন দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।’

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm