মিরসরাইয়ে চুরি হওয়া ২২ মোবাইল ফোন উদ্ধার পাহাড়তলীতে, গ্রেপ্তার ৩

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে চুরি হওয়া ২২টি মোবাইল ফোনসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২১ মার্চ) দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম শহরের পাহাড়তলী থানার নোয়াপাড়া এলাকার চেয়ারম্যান কলোনির সোলাইমানের ভাড়াঘর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার আসামিরা হলেন হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব হিঙ্গুলীর মকরম আলী ভূঁইয়া বাড়ীর শাহ আলমের স্ত্রী আসামী শাহিনুর বেগম (৪৫), চাঁদপুর জেলার কচুয়া থানার খোরশেদ মজুমদারের ছেলে রিয়াদ মজুমদার (২৪) ও নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানার তাজুল ইসলামের ছেলে নাজিম উদ্দিন (২০)।

জানা গেছে, গত ১৪ মার্চ রাতে মিরসরাই পৌরসভার কলেজ রোড এলাকায় স্মার্ট টেলিকমের ৩২টি স্মার্ট মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়ে যায় চোরের দল। যার আনুমানিক মূল্য ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এই ঘটনায় স্মার্ট টেলিকমের স্বত্বাধিকারী ১৫ মার্চ রাতে মিরসরাই থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর পুলিশ সিসিটিভির ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখে, এজাহারভুক্ত আসামি মো. তাকবির হোসেন রিয়াদসহ অজ্ঞাত ৫-৬ জন দোকানের ভেন্টিলেটর ভেঙে প্রবেশ করে ৩২টি স্মার্ট মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়ে যায়।

মিরসরাই থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সিসিটিভির ফুটেজের সূত্র ধরে মঙ্গলবার (২১ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রাম শহরের পাহাড়তলী থানার নোয়াপাড়া চেয়ারম্যান কলোনির সোলাইমানের ভাড়াঘর থেকে আসামি শাহিনুর বেগমকে (৪৫)গ্রেপ্তার করা হয়। এই সময় তার কাছ থেকে চুরি হওয়া ১২টি মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

Yakub Group

পরে শাহিনুর বেগমের তথ্যের ভিত্তিতে রাত সাড়ে ৮টায় একই বাসা থেকে রিয়াদ মজুমদারকে (২৪)৬টি এবং নাজিম উদ্দিনকে (২০) চুরি হওয়া ৪টি মোবাইলসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ আরও জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি শাহিনুর বেগম জানান, তার ছেলে পলাতক আসামি মো. তাকবির হোসেন রিয়াদ গত পাঁচদিন আগে মিরসরাই পৌরসভা এলাকা থেকে মোবাইলগুলো চুরি করে নিয়ে যায়। কয়েকটি মোবাইল বিক্রি করে ফেলেছে। তাকে সহযোগিতা করেছেন আসামি রিয়াদ মজুমদার ও নাজিম উদ্দিন। তারাও পৃথক পৃথক কয়েকটি মোবাইল বিক্রি করেছেন।

মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন বলেন, ‘গত ১৪ মার্চ রাতে মিরসরাই পৌরসভার কলেজ রোডের স্মার্ট টেলিকমের ৩২টি স্মার্ট মোবাইল চুরি হয়। এই ঘটনায় দোকান মালিক আলাউদ্দিন সাদ্দাম বাদি হয়ে মিরসরাই থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রাম শহরের পাহাড়তলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২২টি মোবাইলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

বুধবার দুপুরে আসামিদের আদালতে পাঠানোর পর রিমান্ড চাওয়া হয়েছে বলে জানান ওসি।

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!