মায়ের লাশ ঘরে রেখে এসএসসি পরীক্ষার আসনে সুমাইয়া

মায়ের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে সকালেই অজ্ঞান হয়ে যায় এসএসসি পরীক্ষার্থী সুমাইয়া আকতার। খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলার এই শিক্ষার্থী পরে এসএসসি পরীক্ষার টেবিলে বসলেন মায়ের লাশ ঘরে রেখেই। তখন তার এক হাত কলম, অন্য হাতে সাটানো ছিল স্যালাইন।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে সুমাইয়ার মা ফাতেমা বেগমের মৃত্যু হয়। তাদের বাড়ি পানছড়ির সাওতাল পাড়ায়।

পরে পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনচারুল করিম ওই বাড়িতে যান। এ সময় তিনি সুমাইয়াকে সকাল ১১টায় শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য সাহস যোগান। নিজেই গাড়ি চালিয়ে তাকে নিয়ে যান পরীক্ষা কেন্দ্রে।

এ বিষয়ে আনচারুল করিম বলেন, ‘এলাকার লোকজন থেকে খবর পেলাম একজন এসএসসি পরীক্ষার্থীর মা আজ সকালে মারা গেছেন। শুনেই আমি ওই বাড়িতে যাই। ওই বাড়ির লোকজনের সহায়তায় শোকাভিভূত সুমাইয়াকে আমি খুঁজে বের করি। তাকে সান্ত্বনা দেওয়ার পাশাপাশি পরীক্ষায় যোগদান করতে মোটিভেট করার চেষ্টা করি। পরীক্ষা দিতে সুমাইয়া রাজি হলে তাকে আমি কেন্দ্রে নিয়ে যাই। কেন্দ্রে নেওয়ার আগে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে স্যালাইন পুশ করেন।’

এক প্রশ্নের জবাবে ওসি আনচারুল বলেন, ‘সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা যেকোনো সংকটে মানুষের পাশে থাকতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ কারণে আমরা সুমাইয়ার পাশে থাকার চেষ্টা করেছি।’

Yakub Group

জেএস/এমএফও

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm