মালয়েশিয়ান তেরেঙ্গানুর কাছে অসহায় ভারত চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সিটি

আট গোলের ম্যাচে সুজুকির একারই চার গোল

0

মালয়েশিয়ান লিগের সাত নম্বর দল তেরেঙ্গানু এফসির সাথে ভারতের আই লিগ চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সিটি এফসির লড়াই দিয়ে একদিন বিরতির পর আবারও শুরু হয় শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ। টুর্নামেন্টের তৃতীয় ম্যাচে এসে মোহন বাগানের পর শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হারের তেতো স্বাদ নিলো ভারতের আরেক দল চেন্নাই সিটি এফসিও। মালয়েশিয়ান ক্লাব তেরেঙ্গানু এফসির কাছে ৫-৩ গোলে ধরাশায়ী হয়েছে ইন্ডিয়ান লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দলটি।

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টুর্নামেন্টে গ্রুপ ‘বি’র প্রথম ম্যাচে মঙ্গলবার মাঠে নেমেছিল তেরেঙ্গানু ও চেন্নাই। ভারতীয় প্রতিপক্ষকে একাই অসহায় করে রেখেছিলেন ব্রুনো। তার পা থেকে আসে এবারের টুর্নামেন্টের প্রথম হ্যাটট্রিক। জীবনে এর আগে তিনবার হ্যাটট্রিক করলেও এই প্রথম ম্যাচে চার গোল করলেন ব্রুনো। দল করল পাঁচ গোল, ব্রাজিলীয় বংশোদ্ভূত জাপানি মিডফিল্ডার ব্রুনো সুজুকি একাই করলেন চারটি।

বিদেশি দুই ক্লাবের খেলা বলে এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার চেন্নাই-তেরেঙ্গানুর দিনের প্রথম ম্যাচ দেখতে মাঠে আসেননি চট্টগ্রামের দর্শকরা! একপ্রকার ফাঁকা মাঠেই দারুণ আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দেয় ভারত ও মালয়েশিয়ার দুই ক্লাব। বলতে গেলে এবারের আসরে সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ ম্যাচ ছিল এটি।

খেলায় মাঝমাঠ বলতে তেমন কিছুই ছিল না। ফরোয়ার্ডের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মিডফিল্ডাররাও নেতৃত্ব দিয়েছেন আক্রমণে। হ্যাটট্রিক আদায় করে যেমন ম্যাচ সেরা হয়েছেন ব্রুনো সুজুকি। মাঠে নেমে গা ঘামার আগেই গোল খেয়ে বসে ভারত চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই। ডি-বক্সের একটু বাইরে থেকে আলতো ছোঁয়ায় ব্রুনোর দিকে বল এগিয়ে দেন তেরেঙ্গানু অধিনায়ক লি টাক। সেখান থেকে রহমত বিন মাকাসুফকে বল বানিয়ে দেন সাও পাওলোতে জন্মানো জাপানী মিডফিল্ডার। তেরেঙ্গানুর এ তারকা সুযোগ হাতছাড়া করেননি। ডানপ্রান্ত দিয়ে কোনাকুনি শটে চার মিনিটের মাথায় বল জড়িয়ে দেন জালে।

ম্যাচের ২৪ মিনিটে তেরেঙ্গানু খেলোয়াড়দের ভুলের সুযোগ নিয়ে সেই গোল শোধ দেয় চেন্নাই। নিজেদের ডি-বক্সের বাইরে লি টাকের দিকে বল বাড়িয়ে দিয়েছিলেন তেরেঙ্গানু গোলরক্ষক। হঠাত লি টাকের পা থেকে বল কেড়ে নিয়ে তেরেঙ্গানুর জালে জড়িয়ে দেন চেন্নাই মিডফিল্ডার কাটসুমি ইয়ুসা। দশ মিনিট বাদে গোলরক্ষকের হাস্যকর ভুলে দ্বিতীয় গোল হজম করে তেরেঙ্গানু। কর্নার বাঁচাতে গিয়ে মাশরুর শেরিফের পায়ে বল তুলে দেন দলটির গোলরক্ষক মুহাম্মদ রেজালি। ফাঁকা বারে হেলেদুলেই গোল করেছেন চেন্নাই ফরোয়ার্ড।

পাঁচ মিনিট পরেই দলীয় সমন্বয়ে সমতায় ফেরে তেরেঙ্গানু। প্রতিপক্ষ ডি-বক্সে ওয়ান টাচ ফুটবল খেলে ব্রুনো সুজুকির দিকে বল বানিয়ে দেন সাঞ্জার সাকামেদভ। ৩৯ মিনিটে উজবেক সতীর্থের বানানো লোপ্পা সুযোগে শুধু মাথাই ছুঁয়েছেন জাপানী মিডফিল্ডার। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে তেরেঙ্গানুকে আবারও এগিয়ে দেন সেই ব্রুনোই। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের বাড়ানো বলে চেন্নাই গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে ভলি করে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন জাপানি মিডফিল্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধে আরও তেড়েফুঁড়ে খেলেছেন দুই দলের খেলোয়াড়রা। দুই দলের সামনেই ছিল গোল আদায়ের সুবর্ণ সুযোগ। ৬৪ মিনিটে তেরেঙ্গানুর একটি সম্মিলিত আক্রমণ ঠেকিয়ে দেন চেন্নাই গোলরক্ষক। পাল্টা আক্রমণে নিজেদের জাল বাঁচান তেরেঙ্গানু গোলরক্ষক। ম্যাচের ৭০ মিনিটে এমনই আরেকটি আক্রমণে শেখ কামাল টুর্নামেন্টের এবারের আসরের প্রথম হ্যাটট্রিক আদায় করে নেন ব্রুনো। ডি-বক্সের বাইরে থেকে আইভরি কোস্টের মিডফিল্ডার দেচি এন গুয়েসানের পাসে বল পেয়ে চেন্নাই গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে তা জালে জড়ান এ জাপানি। পরে ৮১ মিনিটে গোলের হালি পূর্ণ করেন ব্রুনো । মুহাম্মদ নূর শাকেরির ক্রসে ভলি করে গোল করেন। পেনাল্টি থেকে পরে এক গোল শোধ দিলেও তেরেঙ্গানুকে বিভ্রান্ত করতে পারেনি চেন্নাই।

এই হারে অবশ্য মোটেও অখুশি নন প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্লাব টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া চেন্নাই কোচ মোহাম্মদ আকবর। আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অনভিজ্ঞতা থাকা সত্ত্বেও শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে তিন গোল শোধ দিতে পারাকেই নিজেদের সেরা সাফল্য মানছেন তিনি। উল্টোদিকে বড় ব্যবধানে জিতে মোটেও নিজেদের ফেভারিট মানতে নারাজ তেরেঙ্গানু কোচ নাফুজেইন। তার চোখে নিজের দল এখনও টুর্নামেন্টের আন্ডারডগ। তবে তার শিষ্য ব্রুনো চার গোল পাওয়াতে বেশ খুশি তিনি।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন