মন্ত্রীকে ধিক্কার জানিয়ে চট্টগ্রামে মিছিল

0

সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সাম্প্রদায়িক হামলা প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যকে ‘ধৃষ্টতাপূর্ণ ও সত্যের অপালাপ’ অভিহিত করে চট্টগ্রামে ধিক্কার মিছিল করেছে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। এসময় মিছিল পূর্ব সমাবেশ থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের পদত্যাগের দাবিও তুলেন সংগঠনটির নেতারা।

এবারের দুর্গাপূজার সময় দেশের বিভিন্নস্থানে ঘটা সাম্প্রদায়িক সহিংসতা নিয়ে গত ২৮ অক্টোবর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতির প্রতিক্রিয়ায় শুক্রবার (১২ নভেম্বর) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে থেকে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশ গুপ্তের নেতৃত্বে এই ধিক্কার মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

মিছিল পূর্ব সমাবেশে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে রানা দাশগুপ্ত বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অসত্য ও ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। সাম্প্রতিক সাম্প্রদায়িক সহিংসতাকে লঘু করে দেখবার এবং ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘু বিশেষ করে হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিকে কোনভাবেই বিবেচনায় না নিয়ে মিথ্যাচারের আশ্রয় নেয়ায় আমরা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করছি।

অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বলেন- গত ১৩ অক্টোবর শারদীয় দুর্গাপূজার মহাষ্টমীর দিন থেকে গত ১ নভেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশে ২৭টি জেলায় সংঘটিত সাম্প্রদায়িক হামলায় ১১৭টি মন্দির ও পূজামণ্ডপ, ৩০১টি বসতবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ধ্বংস ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। পুলিশের গুলিতে মোট ৪ জনসহ আরও ৫ জন হিন্দু হত্যার শিকার হয়েছে।

নিহত ৫ জনের মধ্যে ১৩ অক্টোবর সাম্প্রদায়িক দুষ্কৃতকারীদের আক্রমণের মুখে কুমিল্লার রাজ রাজেশ্বরী মন্দিরের গেট বন্ধ করতে যেয়ে সন্ত্রাসীর আঘাতে গুরুতর জখম দিলীপ দাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২১ অক্টোবর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। ১৫ অক্টোবর চৌমুহনীতে ইসকন মন্দিরের ভক্ত যতন সাহা (৩৫) মন্দির রক্ষা করতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মৃত্যুবরণ করেন।

একই দিনে ইসকন মন্দিরের সন্ন্যাসী প্রান্ত দাশ (৩০)-কে কুপিয়ে পুকুরে ফেলে দেয় সন্ত্রাসীরা। পরের দিন সকালে প্রান্ত দাসের মৃতদেহ ভেসে উঠলে তার মা মৃতদেহ শনাক্ত করেন। উপস্থিত জনগণ ও প্রান্ত দাসের মায়ের বক্তব্য অনুযায়ী, মৃতদেহের মাথায় ও শরীরে ধারালো অস্ত্রের কোপের দাগ ছিল।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সামগ্রিক ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার নির্লজ্জ অপপ্রয়াস চালিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন রানা দাশগুপ্ত। তিনি বলেন, কুমিল্লার মন্দিরে যে যুবক কোরআন রেখেছে তাকে মাদকাসক্ত উল্লেখ করা কার্যত সামগ্রিক ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার নির্লজ্জ অপপ্রয়াস। এসব দায় বিবেচনায় নিয়ে সমাবেশ অনতিবিলম্বে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগের জোর দাবি জানাচ্ছে।

সমাবেশ থেকে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স ঘোষণার বাস্তবায়ন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জারিকৃত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী দুষ্কৃতকারীদের দ্রুত সুষ্ঠু বিচার এবং সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠন, বৈষম্য বিলোপ আইন প্রণয়ন, পার্বত্য শান্তি চুক্তি, পার্বত্য ভূমি কমিশন আইনের যথাযথ বাস্তবায়ন, সমতলের আদিবাসীদের জন্যে পৃথক ভূমি কমিশন গঠন ছাড়াও জাতীয় সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠার দাবি জানানো হয়।

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ ও ধর্মীয়-জাতিগত সংখ্যালঘু সংগঠনসমূহের জাতীয় ঐক্যমোর্চার উদ্যোগে এই ‘ধিক্কার মিছিল’ আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ-চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সভাপতি প্রকৌশলী পরিমল চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এড. নিতাই প্রসাদ ঘোষের সঞ্চলনায় বক্তব্য রাখেন- শ্রীশ্রী জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সুকুমার চৌধুরী, ইসকনের মুকুন্দ ভক্তি দাশ, ঐক্য পরিষদ নেতা ইন্দু নন্দন দত্ত, দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক তাপস হোড়, সুমন কান্তি দে, সাগর মিত্র, ডা. তপন দাশ, সাংবাদিক প্রীতম দাশ, সিঞ্চন ভৌমিক, চন্দন দত্ত, রানা মহাজন, বাবলু কুমার দেব, যীশু নাথ, প্রণব রাজ বড়ুয়া, ডা. দেবাশীষ মজুমদার, মিনু রানী দেবী, রিপন সিং প্রমুখ।

এআরটি/কেএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm