ভূমিমন্ত্রী জাবেদের নৈশভোজ বিএনপি ও মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে, কথা ‘টুকটাক’

বাংলাদেশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতসহ বিএনপির হেভিওয়েট নেতাদের সঙ্গে নৈশভোজে অংশ নিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ।

এদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক সদস্যের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ ও সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড নিয়ে সমালোচনা করায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না আওয়ামী লীগের। দলটির সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও বিভিন্ন সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিষয়ে কড়া সমালোচনা করেছেন। এরমধ্যে সরকারের ভূমিমন্ত্রীর এমন কাণ্ডে চলছে নানান গুঞ্জন।

যদিও নৈশভোজে রাজনৈতিক কোনো আলাপ হয়নি বলে গণমাধ্যমের কাছে দাবি করেছেন ভূমিমন্ত্রী। তবে ২৮ অক্টোবর নিয়ে সামান্য ‘টুকটাক’ আলোচনা হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন তিনি।

জানা গেছে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির পরিচালক সৈয়দ এম আলতাফ হোসাইনের উদ্যোগে নৈশভোজে উপস্থিত ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার ডি হাস ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। সেই নৈশভোজে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ।

বুধবার (২৫ অক্টোবর) রাতে প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির পরিচালকের গুলশানের বাসভবনে এ নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।

নৈশভোজে অংশ নিতে বুধবার রাত সোয়া ৭টার দিকে বিএনপিপন্থি এই ব্যবসায়ীর বাসায় যান মার্কিন রাষ্ট্রদূত। তার আগেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির নেতারা।

নৈশভোজে বিদেশি কূটনীতিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিঙ্গাপুর দূতাবাসের ইউসুফ এম আশরাফ, শিলা পিল্লাই, মার্কিন দূতাবাসের চিফ পলিটিক্যাল কাউন্সিলর শ্রেয়ান সি. ফিজারল্ড।

বিএনপি নেতাদের মধ্যে নৈশভোজে অংশ নেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন, বরকতউল্লাহ বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, আন্তর্জাতিকবিষয়ক কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, ব্যারিস্টার মীর হেলাল, গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলনসহ অন্যান্য নেতারা।

বিএনপির নেতাদের উপস্থিতির বিষয়ে জানতে চাইলে মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান ‘কিছু জানেন না’ বলে জানান।

নৈশভোজে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী অংশগ্রহণের বিষয়টি গণমাধ্যমের কাছে নিশ্চিত করেন তিনি নিজেই।

তার সঙ্গে একটি সূত্র থেকে যোগাযোগ করা হলে তিনি নৈশভোজে উপস্থিতির বিষয়টি স্বীকার করেন। বিএনপি নেতার অনুষ্ঠানে কী কারণে তিনি উপস্থিতি হয়েছিলেন জানতে চাইলে বলেন, ‘আমি সেখানে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে যাইনি। ব্যবসায়ী প্রতিনিধি হিসেবে সেখানে গিয়েছিলাম।’

সেখানে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে দেখা বা কথা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সেখানে বিএনপি নেতারা ছিলেন দেখেছি। সেখানে কোনো রাজনৈতিক আলোচনা হয়নি। বিএনপির নেতারা সাধারণ কথা বলেছে। চলমান রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে ফরমালি কোনো আলোচনা হয়নি। ২৮ অক্টোবর নিয়ে সামান্য টুকটাক আলোচনা হয়েছে।’

পিটার হাসের সঙ্গে রাজনৈতিক কোনো আলাপ হয়েছে কি-না, গণমাধ্যমের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘তার সঙ্গে দেখা হয়েছে। সেখানে রাজনৈতিক কোনো আলাপ হয়নি।’

ভূমিমন্ত্রী গণমাধ্যমকে আরও জানান, আলতাফ সাহেবের সঙ্গে আমার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। ২০১৯ সালের মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলারের সঙ্গেও এমন অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। পিটার হাসের সঙ্গে এমনিতেই সাধারণ কথাবার্তা হয়েছে।

বুধবার রাতের সেই নৈশভোজে ভূমিমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের এক তরুণ এমপিও।

আরএম/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!