s alam cement
আক্রান্ত
৫৬৬৩৩
সুস্থ
৪৮৩৭৪
মৃত্যু
৬৬৫

ভুলে ভরা নোটিশে ‘ভাবমূর্তি’ বাঁচাতে গিয়ে নাক কাটা যাচ্ছে চবির

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভাগ সম্পর্কে কোনো মন্তব্য না করার নির্দেশনা দিয়ে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি নিয়ে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

বিভাগের ভাবমূর্তি বাঁচাতে বুধবার (৯ জুন) প্রকাশিত দুই লাইনের একটি বিজ্ঞপ্তিতে একাধিক ভুলে চবি ও চবির সেই রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের নাক কাটা যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন সেই বিভাগেরই কয়েকজন শিক্ষার্থী।

বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. আনোয়ারা বেগম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই হাস্যরসের খোরাক বনে যায় এই বিজ্ঞপ্তিটি। চবির মত একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে একাধিক ভুল মেনে নিতে পারছেন না সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। ঝেড়েছেন ক্ষোভ, অনেকেই নিচ্ছেন মজা। আবার ভুল বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরও কোন রকম দুঃখ প্রকাশ ও সংশোধনের প্রচেষ্টাও করেনি কর্তৃপক্ষ

আনোয়ার নামে চবির এক শিক্ষার্থী বিজ্ঞপ্তিটির ছবির সাথে ক্যাপশন দিয়েছেন “এথো ভানান বুল?”

অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী সাইফুল করিম জুয়েল তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে এ ব্যাপারে লিখেছেন ‘মাঝখান দিয়ে বিসিএস প্রার্থীদের ফ্রিতে ছয়টি শুদ্ধ বানান শেখা হয়ে গেলো’।

২৫ হাজারের অধিক সদস্যর বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচিত ফেসবুক গ্রুপ চবি ঝুপড়ি থেকে একটি পোস্ট করা হয়েছে এ বিষয়ে, সেখানে ক্ষোভের সুরে লেখা হয়-‘একটা স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বনামধন্য বিভাগের ২ লাইনের বিজ্ঞপ্তিতে ৬টা মারাত্মক ভুল’ আর সেই পোস্টে একজন কমেন্ট করেছেন যে ‘বিজ্ঞপ্তিটা লিখেছে সে ১৮ লাখ টাকা ঘুষ দিয়ে চাকরিটা নিছে, আর আপনি তার ভুল ধরতেছেন?’

Din Mohammed Convention Hall

ভাবমূর্তি রক্ষায় ভুলেভরা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়ে রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি ড. আনোয়ারা বেগমের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কল রিসিভ করেননি।

রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের একাধিক শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তারা এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি। অনেক শিক্ষক আবার বিজ্ঞপ্তির বিষয়টিই জানেন না এবং দেখেননিও বলে প্রশ্ন এড়িয়ে যান।

বিজ্ঞপ্তিতে বানান ও ব্যাকরণগত ভুলের বিষয়টি স্বীকার করে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের এক শিক্ষক বলেন, বিষয়টি নিয়ে যেহেতু একটা হাস্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তাই কেউ দায়িত্ব নিয়ে কথা বলছেন না। তবে কারো না কারো এ ব্যাপারটা পরিষ্কার করা দরকার। চবির মত একটি প্রতিষ্ঠানের কোন বিষয় হাস্যরসের কনটেন্ট হতে পারে না। এটা লজ্জাজনক।

বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা চান, এই বিষয়টির একটা সমাধান হোক। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বা রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগ থেকে বিজ্ঞপ্তিটি সংশোধন বা অন্তত দুঃখ প্রকাশ করে আরেকটি নোটিশ দিয়ে বিষয়টিকে এখানেই শেষ করে দেওয়া হোক।

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm