মিতুকে এসএমএসে খুনের হুমকিও দিয়েছিল বাবুলের ‘প্রেমিকা গায়েত্রী’

0

গায়েত্রী নামে এক বিদেশি এনজিও কর্মীর সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল বাবুল আক্তারের। মিতু ওই সম্পর্কের বিষয়টি জানতে পারলে এটি নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। সেই ঝগড়ার জের ধরেই খুন করা হয় মিতুকে। আর হত্যার আগে গায়েত্রীর মুঠোফোন থেকে মিতুকে এসএমএস করে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়েছিল।

বুধবার (১২ মে) বেলা দুইটার দিকে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় বাবুলসহ আটজনকে আসামি করে মিতু হত্যার ঘটনায় নতুন মামলা দায়েরের পর মাহমুদা খানম মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তবে এই মামলায় গায়েত্রীকে আসামি করা হয়নি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোশাররফ হোসেন বলেন,‘তিনি হুমকি দিয়েছিলেন। কিন্তু এই হত্যা প্রক্রিয়ার সাথে তিনি জড়িত ছিলেন কি-না তা আমাদের জানা নেই। হুমকির বিষয়টি এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে। তদন্তে তার সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তদন্ত কর্মকর্তাই আসামি হিসেবে তার নাম যোগ করতে পারবেন।

মাহমুদা খানম মিতু এসব ব্যাপারে আগেই তাদের জানিয়েছিল মন্তব্য করে মোশাররফ বলেন, ওইসময় মিতু আমাদের সব জানিয়েছিল। আমরা পারিবারিকভাবে বিষয়টি সমাধানেরও চেষ্টা করেছি। কিন্তু সফল হতে পারিনি।

মোশাররফ হোসেন আরও বলেন, বাবুলের পরিকল্পনায় আসামিরা আমাকে মেয়েকে হত্যা করেন। ২০১৩ সালে বাবুল যখন কক্সবাজারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন, তখন এনজিওর এক মাঠকর্মীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক হয়। বিষয়টি মিতু জানতে পারলে ঝগড়া হয়।

Yakub Group

ঘটনার পর মোশাররফ হোসেনের বাসায় ছিলেন বাবুল। মামলা করতে দেরি কেন করলেন? এসব ব্যাপারে জানতে চাইলে মিতুর বাবা জানান, বাবুলের বিষয়ে তিনি পরে নিশ্চিত হয়েছেন। একই ঘটনায় দুটি মামলা হয় না। পিবিআই চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়ার পরে তিনি মামলা করেছেন।

জানা গেছে, গায়ত্রী অমর সিং একজন ভারতীয় নাগরিক। তিনি ইইউএনএইচসিআর-এর ফিল্ড অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন

এদিকে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূঁইয়া বলেন, ‘মামলাটি পিবিআই তদন্ত করবে। আমরা সব ডকুমেন্টস কিছুক্ষণের মধ্যেই পিবিআইয়ের হাতে হস্তান্তর করবো।’

নতুন দায়ের করা মামলার অপর আসামিরা হলেন- কামরুল ইসলাম শিকদার প্রকাশ মুসা, এহতেশামুল হক ভোলা, মোতালেব মিয়া, আনোয়ার হোসেন, খায়রুল ইসলাম কালু, সাইফুল ইসলাম শিকদার ও শাহজাহান মিয়া।

এআরটি/এমএফও

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm