বৃষ্টি নিয়ে গবেষণা করে চুয়েট শিক্ষক পেলেন ইউজিসি স্বর্ণপদক

0

সম্প্রতি ইউজিসি (বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন) স্বর্ণপদকের জন্য মনোনীত হয়েছেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. রিয়াজ আকতার মল্লিক।

বাংলাদেশের তাপমাত্রা এবং বৃষ্টিপাত পরিবর্তন প্রবণতা সংক্রান্ত একটি গবেষণা প্রবন্ধের জন্য বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) স্বর্ণপদকের জন্য মনোনীত হন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১৮ সালে প্রকাশিত উপর্যুক্ত শিরোনামের গবেষণা প্রবন্ধটি ইউজিসি স্বর্ণপদকের জন্য নির্বাচিত হন অধ্যাপক ড. রিয়াজ আকতার মল্লিক। রাষ্ট্রপতি এই পদক প্রদান করে থাকেন।

ড. রিয়াজ আকতার মল্লিক বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়(বুয়েট) থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এ স্নাতক এবং বেলজিয়ামের গেন্ট ইউনিভার্সিটি থেকে এনভায়নমেন্টাল স্যনিটেশনের উপর মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি (এআইটি) থেকে ওয়াটার ম্যানেজমেন্টের ওপর পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

এর আগে তিনি সেন্ট যোসেফস হাই স্কুল এবং সরকারি বিএল কলেজ খুলনায় পড়ালেখা করেন।

‘ঐতিহাসিকভাবে পরিলক্ষিত বাংলাদেশের তাপমাত্রা এবং বৃষ্টিপাত পরিবর্তন প্রবণতা’ শীর্ষক গবেষণা প্রবন্ধটি বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গবেষণাটি পাওয়া যাবে এই লিংকে। https://www.sciencedirect.com/science/article/abs/pii/S0921818117302552

এই গবেষণায় বাংলাদেশের জন্য ১৯৬৬ থেকে ২০১৫ সালের তাপমাত্রা এবং বৃষ্টিপাতের পরিবর্তনের প্রবণতা চিহ্নিত করা হয়েছে। সারা দেশের জন্য ঋতু অনুযায়ী বিশ্লেষণ করা হয়েছে। তাপমাত্রার প্রবণতার জন্য শীত ব্যতীত সব ঋতুতেই ক্রমবর্ধমান প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। এটি গড় বার্ষিক ভিত্তিতে গত ৫০ বছরে ০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গড় বৃষ্টিপাতের ক্ষেত্রে শীতকাল ব্যতীত বাকি তিনটি ঋতুতে ক্রমবর্ধমান প্রবণতা লক্ষণীয়। সামগ্রিকভাবে বার্ষিক ভিত্তিতেও এই ক্রমবর্ধমান প্রবণতা লক্ষণীয়। গবেষণাটির উপসংহারে বলা যায়, বাংলাদেশের জলবায়ু শীত কালের জন্য শীতল ও শুষ্ক হয়ে উঠছে, অন্যদিকে বছরের বাকি সময় আরোও উষ্ণ ও আর্দ্র হচ্ছে।

ড. মল্লিক জানান, আমরা জানি বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষতির কারণে হুমকির সম্মুখীন। গবেষণা প্রবন্ধটি থেকে বাংলাদেশে বিভিন্ন অঞ্চলে বছরের বিভিন্ন সময়ে জলবায়ুর পরিবর্তন ঠিক কতটা হয়েছে তা জানা যাবে। এখান থেকে ভবিষ্যতেও কোন অঞ্চলে জলবায়ুর পরিবর্তন কেমন হবে তা ধারনা করা যাবে। মুলত কৃষি নির্ভর বাংলাদেশে এই গবেষণার তথ্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

ইউজিসি স্বর্ণপদকে মনোনীত হওয়ার অনুভূতি সম্পর্কে ড. মল্লিক বলেন, স্বর্ণপদকের জন্য মনোনীত হওয়ায় অত্যন্ত ভাল লাগছে। এটা শুধু আমার নিজের জন্য সম্মান বয়ে আনেনি বরং পুরো চুয়েট পরিবাবের জন্য সম্মান বয়ে এনেছে। চুয়েট পরিবার থেকে ভবিষ্যতে আরও কেউ এই সম্মান পেলে আমি আরও আনন্দিত হব। চুয়েটের উচিৎ হবে ভালো মানের গবেষণাকে আরও উৎসাহিত করা।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm